প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির দ্বিতীয় সমাবর্তনে নওফেল

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে জ্ঞান সৃষ্টির বিষয়ে আরও জোর দিতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

10

শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে গবেষণা ও জ্ঞান সৃষ্টির বিষয়ে আরও জোর দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কতটুকু তারা উদ্যোগী ভূমিকা রাখছেন সেটা নিয়ে ভাববার সময় এসেছে। কেননা অনেক বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণায় ভূমিকা রাখছে না। ‘বাণিজ্যিক’ চিন্তাভাবনা করে প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন। তাদের সেই মনোভাব থেকে সরে আসতে হবে। গতকাল সকালে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির দ্বিতীয় সমাবর্তনে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. অনুপম সেন।
শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যাতে শিক্ষা নিয়ে বাণিজ্য না করে সেজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পরপরই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১০ পাস করান। আইনটি পাস হওয়ার পর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রচলিত মালিকানা শব্দটির পরিবর্তে হয়েছে বোর্ড অব ট্রাস্টি। যার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় নির্দিষ্ট নিয়মে পরিচালিত হয়। সেখানে সরকার বা রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপ করার সুযোগ রয়েছে। অন্যথায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় খাত গতাণুগতিক বাণিজ্যিক
খাত হিসেবে গড়ে উঠত।
শিক্ষা- উপমন্ত্রী গ্রাজুয়েট শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, উন্নত বিশ্বে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অ্যালামনাই থাকে, তারা গ্রাজুয়েটদের কর্মসংস্থান ও কর্মজীবনে সহায়ক ভ‚মিকা রাখে। আপনারা দেশে-বিদেশে ছুটে যাবেন। আপনাদের মধ্যে আদর্শিক চিন্তা-চেতনায় ভিন্নতা থাকতে পারে, তবে দেশের স্বার্থে সবাইকে এক হতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় উন্নয়নের সূচনা হয়েছে, তাই সংশ্লিষ্ট সবাইকে কাজ করে যেতে হবে।
বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, দেশে প্রচলিত শিক্ষার বদলে কারিগরি শিক্ষার দিকে ছাত্র-ছাত্রীদের মনোযোগ দিতে হবে। গ্রাজুয়েট হয়ে অন্যের অধীনে আপনি কেন চাকরি করবেন? উদ্যোক্তা হোন, আপনি নিজেই অন্যকে চাকরি দিন। অর্থনীতির সক্ষমতা বাড়াতে হলে দরকার বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তির পর্যাপ্ত জ্ঞান। দেশ অর্থনীতিতে মজবুত হলে দেশের ভিতও শক্ত হবে। এ জন্য দরকার বাস্তবমুখী শিক্ষা। মনে রাখতে হবে, শিক্ষা অস্তিত্ব রক্ষার হাতিয়ার।
উপাচার্য অধ্যাপক ড. অনুপম সেন স্বাগত বক্তব্যে বলেন, প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় কৃতিত্বপ‚র্ণ অবদান রাখছেন। এমন কোনো সেক্টর পাওয়া যাবে না, যেখানে প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী নেই। এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৮ হাজার শিক্ষার্থী স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়ে বের হয়েছেন। বর্তমানে ৮ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত। তিনি বলেন, প্রয়াত নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কল্যাণে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি গড়ে উঠেছিল। তিনি চেয়েছিলেন এই অঞ্চলের মানুষকে শিক্ষার দিক দিয়ে এগিয়ে রাখতে। এছাড়াও তিনি স্বাস্থ্য খাতেও অনেক অবদান রেখেছেন।
অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা হিসেবে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন বক্তব্য রাখেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির উপস্থিত থাকার কথা থাকলে ব্যক্তিগত সমস্যার কারণে তিনি আসতে পারেননি। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ১ হাজার ১১২ জনকে ডিগ্রি প্রদান করা হয়।