বিমানবন্দরের ‘পাখি সমস্যা’র সমাধান প্রয়োজন

17

দেশের বিমানবন্দরগুলোর পাখি সমস্যা উড়োজাহাজে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে। দীর্ঘদিন বলার পরও সমাধান হয়নি। তাছাড়া বিমানবন্দরের অবকাঠামো ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিশ্বের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ রাখা জরুরি।
মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত ‘উড়োজাহাজের নিরাপত্তা উন্নয়নে গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক এক আলোচনাসভায় একথা বলেন বেসরকারি এয়ারলাইন্স নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মফিজুর রহমান।
মফিজুর রহমান বলেন, বিশ্ব পরিমণ্ডলে আমাদের দেশের এভিয়েশন সেক্টরের ইমেজ খুব বেশি উজ্জ্বল না। এ বিষয়ে জনসচেতনার অভাব প্রকট। তবে মিডিয়ার আগ্রহ আর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ক্রমান্বয়ে উন্নতি হচ্ছে।
‘২০১৭ সালের অক্টোবরে নভোএয়ার ওয়ার্ল্ড সেফটি এয়ারলাইন্সের তালিকায় স্থান করে নিয়েছিলো। আমাদের কোম্পানি সব সময় নিরাপত্তার বিষয়টা অগ্রাধিকার দেয়। নিরাপত্তা বিষয়ে কোনো কম্প্রোমাইজ করা হয়নি কখনও। এজন্যই আমরা মাত্র পাঁচ বছরের মধ্য অল্প পরিসরে এলেও বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে আসতে পেরেছি।’
নভোএয়ার এমডি বলেন, দেশের বিমানবন্দরগুলোর পাখি সমস্যা প্রকট। এ সমস্যা সমাধানে অন্য দেশ ড্রোন ব্যবহার করে। উড়োজাহাজগুলোতে বড় ধরনের সমস্যা আনতে পারে পাখি। শাহজালাল বিমানবন্দরের রাডার আধুনিক হওয়া জরুরি। এটা অনেক পুরনো। তাছাড়া বিমানবন্দরগুলোর নিরাপত্তা আরও বাড়ানো প্রয়োজন বলে আমরা মনে করি।
অনুষ্ঠানে নভোএয়ারের চিফ অব সেফটি ক্যাপ্টেন আশফাকসহ প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।