বিক্ষোভে বাধা দেওয়ার অভিযোগে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলা

9

শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে বাধা দেওয়ার অভিযোগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএন-এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, মানবাধিকার সংগঠন দ্য আমেরিকান সিভিল লিবার্টিস ইউনিয়ন (এসিএলইউ) বৃহস্পতিবার ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে নাগরিক অধিকার হরণের মামলা করেছে। ২৫ মে মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের বৃহত্তম শহর মিনিয়াপলিসে পুলিশি হেফাজতে হত্যার শিকার হন জর্জ ফ্লয়েড। একজন প্রত্যক্ষদর্শীর ধারণ করা ১০ মিনিটের ভিডিওতে দেখা গেছে, হাঁটু দিয়ে নিরস্ত্র ফ্লয়েডের গলা চেপে ধরে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ডেরেক চাওভিন নামের এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ সদস্য। এই হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র।
রবিবার সন্ধ্যায় হোয়াইট হাউসের কাছে অবস্থিত সেন্ট জন’স এপিস্কোপাল চার্চে আগুন লাগিয়ে দেয় কিছু বিক্ষোভকারী। সোমবার সেখানে বিক্ষোভ চলমান থাকা অবস্থাতেই ওই গির্জায় প্রবেশের সিদ্ধান্ত নেন ট্রাম্প। প্রেসিডেন্টের জন্য পথ তৈরি করে দিতে বিক্ষোভকারীদের ওপর চড়াও হয় নিরাপত্তা বাহিনী। সহিংস পথে তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়।
দ্য আমেরিকান সিভিল লিবার্টিস ইউনিয়ন এ ঘটনায় মামলা করেছে। তাদের অভিযোগ, গত সোমবার ট্রাম্পকে চার্চে যাওয়ার পথ তৈরি করতে রাসায়নিক বস্তু ছুড়ে একটি পার্ক থেকে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী। এতে নাগরিক অধিকার ক্ষুণ্ণ হয়েছে। ওয়াশিংটনের ফেডারেল কোর্টে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়ে বলেছেন, কর্মকর্তা ও ফেডারেল সম্পত্তি রক্ষায় তা দরকার ছিল। মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে সোমবার লাফায়েত্তে পার্ক থেকে বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে ট্রাম্প-বার ও অন্যান্য কর্মকর্তারা ‘আইনবহির্ভূতভাবে’ তাদের অধিকার ‘খর্ব করেছেন’। সে সময় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী কর্মকর্তারা আগ্রাসী হয়ে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করেছেন এবং রাবার বুলেট ছুড়েছিলেন।