বিক্রেতা ছাড়া পণ্য বিক্রি হবে সততা স্টোরে

হাটহাজারী প্রতিনিধি

34

 

কোনো বিক্রেতা নেই, তবুও বিক্রি হবে পণ্য। বিক্রেতা ছাড়াই পণ্য বিক্রি হবে সততা স্টোরে। এটা অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি যে, পণ্যের গায়ে লেখা দাম ক্যাশ বাক্সে রেখে ক্রেতা (বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা) পছন্দের পণ্যটি কিনবে। আগামী প্রজন্মের মধ্যে সততা সৃষ্টির লক্ষ্যে দুর্নীতি দমন কমিশনের অর্থায়নে এমনি একটি সততা স্টোর গড়ে তোলা হয়েছে হাটহাজারী উপজেলার শত বছরের পুরানো ঐতিহ্যবাহী ফতেয়াবাদ আদর্শ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে। গত ১২ ডিসেম্বর ওই বিদ্যালয়ের নির্দিষ্ট একটি কক্ষে বসানো এ সততা স্টোরের উদ্বোধন করেন উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এডভোকেট মোহাম্মদ আলী। একই দিনে উক্ত বিদ্যালয়ের ‘বরণাচরণ নন্দী’ হলে উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে সততা স্টোর উদ্বোধনী ও দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আক্তার উননেছা শিউলী। ফতেয়াবাদ আদর্শ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা আবুল কদরের সভাপতিত্বে ওই সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার হাটহাজারী সংবাদদাতা মো. আতাউর রহমান মিয়া, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিয়াজ মোর্শেদসহ উক্ত বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। কেন এমন একটি উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে জানতে চাইলে উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. আতাউর রহমান মিয়া এ প্রতিবেদককে জানান, বিশ্বের উন্নত দেশে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন ব্যবস্থা চালু আছে। বাংলাদেশে প্রতি উপজেলার যে স্কুলে শিক্ষার মান, ছাত্র-ছাত্রীদের ফলাফল ভাল শুধুমাত্র সে বিদ্যালয়ে সততা স্টোর উদ্বোধন করা হচ্ছে।
সততা স্টোরে স্থান পেয়েছে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরণ। যেখানে শিক্ষার্থীরা নিজের সততার পরিচয় দেবেন। কোনো বিক্রেতা নেই। তবুও বিক্রি হবে পণ্য। তবে, যদি এ ব্যবসায় লোকসান গুণতে হয়, তবেই বুঝা যাবে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মধ্যে কতটুকু সততা রয়েছে। এটাই সততা স্টোরের মূল উদ্দেশ্য।