বান্দরবানে বৌদ্ধ ভিক্ষুকে কুপিয়ে হত্যা

27

ওই বিহারের সবিদ্যা নামে এক জ্যেষ্ঠ শ্রমণ হত্যাকান্ডে জড়িত থাকতে পারে বলে স্থানীয়রা সন্দেহ করছেন
বান্দরবান প্রতিনিধি
বান্দরবানে সদর উপজেলার কুহালং ইউনিয়নে বাকীছড়া এলাকায় এক বৌদ্ধ ভিক্ষুকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত ভিক্ষুর নাম নাইন্দা (৭৫)। স্থানীয়রা তাকে ম্রাথোয়াই মারমা নামে চিনেন। বৃহস্পতিবার সকালে বাকীছড়া মাঝের পাড়া বৌদ্ধ বিহারে এ ঘটনা ঘটে। এতে ওই বিহারের সবিদ্যা নামে এক জ্যেষ্ঠ শ্রমণ হত্যাকান্ডে জড়িত থাকতে পারে বলে স্থানীয়রা সন্দেহ করছেন। বান্দরবান সদর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, বিহারের পাশের ঘরে রক্তাক্ত অবস্থায় ভিক্ষু নাইন্দাকে দেখতে পান তারা। অন্যান্য ভিক্ষুরা লাশ উদ্ধার করে ক্যায়াং-এ নিয়ে যায়। এসময় বিহারে থাকা শ্রমণ সবিদ্যাকে পালিয়ে যেতে দেখেন তারা। এজন্য বিহার কমিটি এবং স্থানীয়রা ওই শ্রমণকে সন্দেহ করছেন।
পাড়া কারবারী পাইহ্রী মারমা জানান, গত ৩ বছর ধরে ওই ভিক্ষু মন্দিরে অবস্থান করছিলেন। এর আগে তিনি কুহালং মন্দিরের ভিক্ষু ছিলেন। ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়া শ্রমণ সবিদ্যা মানসিক বিকারগ্রস্ত ছিল। সে পালিয়ে যাওয়ার সময় ভিক্ষুরা তাকে আটকানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়।
কুহালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সানু প্রæ মারমা বলেন, ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে বিহারের উপাধ্যক্ষ নাইন্দা ভিক্ষু’কে হত্যা করা হয়েছে। নিহত উপাধ্যক্ষের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়া শ্রমণের কয়েকবার কথা কাটাকাটি হয়েছিল। তারই জের ধরে এ হত্যাকান্ড ঘটে থাকতে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
সহকারী পুলিশ সুপার ইয়াছিন আরাফাত জানান, বৌদ্ধ ভিক্ষুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার শরীরে গলায় এবং মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। ঘটনার পর থেকে এক শ্রমণ পলাতক রয়েছে। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকারীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।