বান্দরবানে প্রতীক পেয়ে প্রচারণায় প্রার্থীরা

বান্দরবান প্রতিনিধি

23

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বান্দরবানে প্রার্থীদের শান্তিপূর্ণ নির্বাচনী প্রচারণা শুরু হয়েছে। বান্দরবানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনীত দুই প্রার্থীর বাসা একই এলাকায়। তবে কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই গতকাল সোমবার শান্তিপূর্ণভাবে প্রচারণার কাজ চালিয়ে গেছেন উভয় পক্ষের লোকজন।
সকালে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সভাকক্ষে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম। এসময় জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রেজাউল করিম, সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেনসহ আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী ও সমর্থকরা উপস্থিত ছিলেন। রিটার্নিং অফিসার প্রার্থীদের নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে চলার উপর নির্দেশনা প্রদান করেন। এবারের নিবাচনে বান্দরবান সংসদীয় আসনে তিনজন প্রার্থী রয়েছে। তারা হলেন আওয়ামী লীগের বীর বাহাদুর উশৈসিং নৌকা প্রতীক, বিএনপি থেকে সাচিং প্রæ জেরী ধানের শীষ প্রতীক এবং ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী শওকতুল ইসলাম হাত পাখা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন।
প্রতীক বরাদ্দের সময় জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, জেলার ৭টি উপজেলায় ১৭৬টি ভোটকেন্দ্র ভোট গ্রহণ করা হবে। এসব কেন্দ্রে ১৭৬ জন প্রিজাইডিং অফিসার ছাড়াও ৬০৫ জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও ১২১০ জন পোলিং অফিসার থাকবেন। একই সাথে জেলার দুর্গম ১৪টি কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম ও কর্মকর্তাদের নেয়ার জন্য নিরাপত্তা বাহিনীর হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে। এদিকে প্রতীক বরাদ্দের পরপরই প্রচারণায় নামেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থীরা। আওয়ামী লীগের প্রার্থী বীর বাহাদুর উশৈসিং জেলার থানচি উপজেলার রেমাক্রী থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন। অন্যদিকে বিএনপি প্রার্থী সাচিং প্রু জেরী জেলা শহর থেকে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করেছেন। একইসাথে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীও প্রচারণার কাজ শুরু করেন। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই বান্দরবান জেলা শহর পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে যায়। এছাড়া শহর জুড়ে চলছে প্রার্থীদের মাইকিং। দুই প্রার্থীর লোকজনের এমন শান্তিপূর্ণ প্রচারণা দেখে খুশি সাধারণ জনগণ। এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে নির্বাচনী উৎসবের আমেজ।