বান্দরবানে আকিজ গ্রুপের শ্রমিকদের দিয়ে মানববন্ধন

বান্দরবান প্রতিনিধি

13

বান্দরবানে পার্বত্য মন্ত্রীর বাড়ির সামনে রোজাদার শ্রমিকদের রোদে দাঁড় করিয়ে মানববন্ধন করালো আকিজ বিড়ি কোম্পানী। বিড়ির মূল্য বৃদ্ধি না করার দাবি জানিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর বাড়ির সামনে মানববন্ধনের নামে প্রায় ঘন্টাব্যাপী শতাধিক শ্রমিকদের রোদে দাঁড় করিয়ে মানববন্ধন করতে বাধ্য করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে আকিজ বিড়ি কোম্পানির বিরুদ্ধে। আর এর ফলে রোজাদার শ্রমিকরা রোজা রেখে ক্ষুধায় তৃষ্ণায় দুর্বল হয়ে অসুস্থ পড়েছে। অনেকে রোজা ভেঙ্গে ফেলারও অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার বিকালে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপির বান্দরবান বাসবভনের সামনে কর্মসূচির আয়োজন করে। এ সময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বিড়ি ভোক্তা সমিতির সভাপতি এস.এম মোস্তাকিন জনি, আকিজ বিড়ি কোম্পানির বান্দরবান জেলা সমন্বয়কারী মো. ফারুক হোসেন, সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক রেমং মার্মা প্রমুখ। এদিকে শ্রমিকরা জানায়, তাদেরকে আকিজ বিড়ি কোম্পানির লোকজন কড়া রোদে দাঁড়াতে বাধ্য করেছে। তারা আরো বলেন, কয়েকদিন ধরে বান্দরবানসহ সারা দেশে প্রচন্ড গরম পড়েছে। গরমে ঘর থেকে পর্যন্ত বের হওয়া যাচ্ছেনা। এর মধ্যে আবার অনেকে রোজাও রেখেছেন। আর ঠিক এ মূহুর্তে তাদের রোদে দাঁড়িয়ে মানববন্ধনে বাধ্য করা হয়েছে। এ বিষয়ে কয়েকজন শ্রমিক জানায়, আকিজ বিড়ি কোম্পানির অফিসাররাও মানববন্ধনে ছিল। তারা আমরা রোজা রেখেছি জানার পরও আমাদের বাধ্য করেছে মানববন্ধন করতে। তবে দীর্ঘ সময় আমাদের কড়া রোদে মানববন্ধনে দাঁড় করিয়ে রাখায় অনেক শ্রমিক অসুস্থ হয়ে গেছে। আবার অনেকের রোজাও ভেঙ্গে ফেলতে হয়েছে। এদিকে বান্দরবানের সাধারণ মানুষের মতে, পবিত্র রমজান মাসে পার্বত্য মন্ত্রীর বাড়ির সামনে এ ধরণের মানববন্ধন করতে দেয়া ঠিক হয়নি। তাদের মতে বিড়ির দাম না বাড়ানোর প্রতিবাদে মানববন্ধন করাটা ভালভাবে দেখছেন না। তারা বলছেন, বর্তমানে আমাদের দেশে কোন কিছুরই নিয়ন্ত্রণে না থাকার কারনে যে যার ইচ্ছেমত মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে যাচ্ছে। এসময় তারা রমজান মাসে যারা শ্রমিকদের কড়া রোদে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করতে বাধ্য করেছে তাদের শান্তির দাবি জানিয়েছে। বান্দরবানের আবদুর রহিম বলেন, পবিত্র রোজার মাসে রোজাদার শ্রমিকদের রোদে দাঁড় করিয়ে মানববন্ধন করানোটা বিড়ি কোম্পানীদের ঠিক হয়নি। এ সময় তিনি বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। এ বিষয়ে আকিজ বিড়ি ভোক্তা সমিতির দক্ষিণ চট্টগ্রামের সভাপতি এস.এম মোস্তাকিন জনির কাছ থেকে কড়া রোদে রোজাদার শ্রমিকদের দাঁড় করিয়ে মানববন্ধণের কারণ জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি নিয়ে পরে কথা বলবেন বলে মুঠো ফোনের লাইন কেটে দেন।