উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

বান্দরবানের ৭ উপজেলায় প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

বান্দরবান প্রতিনিধি

33

উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পাবর্ত্য বান্দরবান জেলার ৭ উপজেলায় প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চায়ের দোকান থেকে শুরু করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিসপাড়া, রাস্তাঘাটে, বিভিন্ন হাটে-বাজারে, স্কুল মাঠে সর্বত্র প্রার্থীদের জমজমাট প্রচার-প্রচারণা লক্ষ্য করা গেছে। ব্যানার-ফেস্টুন, পোস্টারে, পোস্টারে ছেঁয়ে গেছে সমগ্র উপজেলা। এছাড়া মাইকে মাইকে বিভিন্ন ধরনের গান-বাজনার মাধ্যমে চলছে প্রচারণা।
জেলার রুমা, থানচি, আলীকদম, রোয়াংছড়ি, লামা, নাইক্ষংছড়ি ও বান্দরবান সদরসহ সাতটি উপজেলায় আগামি ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে ২য় ধাপের উপজেলা নির্বাচন। এতে চেয়ারম্যান পদে ১৭ জন ও ভাইস-চেয়ারম্যান (পুরুষ) এবং মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ১৪ জন প্রার্থী নির্বাচনী প্রচারণায় মাঠে রয়েছেন।
গণসংযোগ আর প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ও লামা উপজেলা পরিষদের আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. মোস্তফা জামাল। গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে তিনি লামা উপজেলার গজালিয়া, লুলুাইন, সরই বাজার, ক্যায়াজুপাড়া বাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ঘুরে ঘুরে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করেন।
জেলার নাইক্ষ্যংছড়িতে আ’লীগের মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক শফিউল্লাহ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবু তাহের কোম্পানী, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ ফরিদ এবং চোচু মং মার্মাসহ চারজন প্রার্থী রয়েছেন। নির্বাচনে চার প্রার্থী থাকলেও মূলত এখানে দ্বিমুখী লড়াইয়ের আভাস পাচ্ছেন স্থানীয়রা। এবারের নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিলেও দলটির কিছু নেতা-কর্মী নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। এছাড়াও রুমা, রোয়াংছড়ি, থানচি, আলীকদম ও বান্দরবান সদর উপজেলার চেয়ারম্যানের পাশাপাশি ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থীরাও প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।
উল্লেখ্য, বান্দরবানে ২ লক্ষ ৪৬ হাজার ১৮৪ জন ভোটার রয়েছেন যারা আগামি ১৮ই মার্চ ভোটের মাধ্যমে সাতটি উপজেলার চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবেন।