বাণিজ্য মেলায় প্রথম চিনি ও খাদ্য শিল্প করর্পোরেশন স্টল

21

‘আমার দেশের সোনার মাটি, চিনিশিল্প ফলায় ফলন খাঁটি’ স্লোগান সমৃদ্ধ ঢাকা আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় চিনিশিল্পের স্টল। বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের কারখানা ও জমিতে উৎপাদিত কেমিক্যালমুক্ত স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যপণ্য সাশ্রয়ী মূল্যে বাণিজ্য মেলায় পাওয়া যাচ্ছে।
ৎদেশজুড়ে শিশু-বৃদ্ধ, যুবক-যুবতী সবাই যখন কেমিক্যালমুক্ত খাদ্যপণ্য নিতে অগ্রহী এমন পরিবেশে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করর্পোরেশন নিয়ে এসেছে স্বস্তির আমেজ। এবারের ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় সেই প্রচেষ্টা চালাচ্ছে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করর্পোরেশন।
চিনিশিল্পের প্রধান পণ্য ” আখের চিনি” এর সাথে বিক্রি হচ্ছে কেরুজ ভিনেগার, কেরুজ সোনার দানা সার যা জমিতে প্রয়োগে দ্বিগুন ফসল আবাদ সচেষ্ট ও পরীক্ষিত শুধু তাই নয় মিলের পতিত জমিতে আবাদকৃত মসুরডাল,মুগডাল,সরিষা খেতে মৌ চাষ করে মধু আহরণ করে চিনিশিল্পের ব্যানারে আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় বিক্রিসহ প্রচার কার্যক্রম চলছে।
বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করর্পোরেশন’র চিনি প্রধান পণ্য। চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের আওতায় ১৫টি চিনিকল রয়েছে। চিনিকলের নিজস্ব খামারগুলোতে এসব পণ্য তৈরি হয়।
চিনি ছাড়া অন্য পণ্যগুলো সঙ্গী পণ্য হিসেবে উৎপাদন হচ্ছে। এসব পণ্যের বড় গুণ হচ্ছে এগুলো মানসম্পন্ন, স্বাস্থ্যকর। এছাড়া দামও কম।’
মেলার প্রধান গেট দিয়ে প্রবেশ করে সোজা দক্ষিণে চলে গেলে দেখা যাবে ‘বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করর্পোরেশন’র স্টলটি। স্টলেই কেমিক্যালমুক্ত স্বাস্থ্যসম্মত ” আখের চিনি” ক্রেতার হাতে তুলে দিতে সার্বক্ষণিক নিয়োজিত রয়েছেন একঝাঁক তরুণ কর্মী। তবে এ চিনি বিক্রির মূল উদ্দেশ্য মুনাফা নয়, মেলায় আসা মানুষকে স্বাস্থের ঝুঁকি কমিয়ে যেন তারা মেলা উপভোগ করতে পারেন।
কথা হয় ‘চিনিশিল্পের’ স্টল থেকে আখের চিনি” সরবরাহ করা এক কর্মীর সঙ্গে। তিনি বলেন, “আখের চিনি” এরই মধ্যে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করেছে। মেলার প্রথম থেকেই আমরা চিনি বিক্রি করছি। প্রতিদিন যথেষ্ট সংখ্যক ক্রেতা এখান থেকে চিনি সংগ্রহ করছেন। তবে বিকাল ও সন্ধ্যায় বেশি বিক্রি হচ্ছে।’
মেলায় চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাচ্ছে চিনি, মধু, চাল, ভিনেগার, ডাল, সরিষার তেল, হলুদ, মরিচ, জৈব সার ও গো-খাদ্য। পণ্যগুলোর মধ্যে চিনি ৬৫ টাকা, মধু ৪০০ গ্রাম ২৭৫ টাকা, পোলাও চাল ৯০ টাকা, ভিনেগার সাড়ে ৪০০ মিলি ৫০ টাকা, মুগ ডাল ১০০ ও মসুর ডাল ৯০ টাকা, সরিষার তেল ৫০০ মিলি ১০০ টাকা, হলুদ ও মরিচের গুড়া ৫০০ মিলি ১০০ টাকা, জৈব সার ‘সোনার দানা’ ২০ টাকা, গো-খাদ্য ‘মোলাসেস বøক’ ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। বিজ্ঞপ্তি