বাংলা হোক সার্বজনীন

রাসু বড়ুয়া

41

পৃথিবীর প্রায় প্রত্যেক জাতির নিজস্ব একটা ভাষা রয়েছে। যে ভাষার মাধ্যমে নিজের মনের ভাব অন্যের কাছে প্রকাশ করি। মায়ের মুখ থে
কে শেখা ভাষাই মাতৃভাষা। এই ভাষাতেই আমরা জগৎকে চিনতে শুরু করি। মাতৃভাষার ভিত্তি মজবুত না হলে অন্য ভাষাও আমাদের জন্য কঠিন হয়ে ওঠে। নিজের মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষা করতেই বাংলার ছেলেরা একসময় রাজপথে নেমে এসেছিল।
তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী খাজা নাজিমুদ্দীন যখন ঘোষণা করেন ‘উর্দুই হবে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা’ তখন এর প্রতিবাদে ছাত্রজনতা বিভিন্ন কর্মসূচীর ডাক দেন।
কর্মসূচীতে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা দিবস পালনের ঘোষণা দিলে শাসকগোষ্ঠী ১৪৪ ধারা জারি করে। মাতৃভাষাকে সমুজ্জ্বল রাখতে সকল বাধা অতিক্রম করে বাংলার ভাষাপ্রেমিকেরা মিছিল নিয়ে এগিয়ে যায়। মিছিল ঢাকা মেডিকেল কলেজের সামনে গেলে পুলিশের গুলিতে রফিক, সালাম, বরকত, জব্বার, শফিউরসহ আরো অনেকে শহিদ হন। পরে মাতৃভাষা বাংলা রাষ্ট্রভাষার স্বীকৃতি পায়।
শহিদদের আত্মত্যাগের স্মৃতিকে ধরে রাখার জন্য তৈরি হয় শহিদ মিনার। প্রতিবছর ২১ ফেব্রæয়ারি শহিদ মিনারে আমরা শ্রদ্ধা নিবেদন করি। ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠায় শহিদদের স্মরণে নির্মিত মিনার এখন শুধু একটি মিনার নয়, প্রেরণার উৎস। বর্তমান প্রজন্মের কাছে গর্ব করার মত সমৃদ্ধ একটি ইতিহাসের স্বাক্ষী শহিদ মিনার। পৃথিবীতে নিজের মাতৃভাষার জন্য এমন আত্মদানের ইতিহাস বিরল। তাই সময়ের দাবী আন্তর্জাতিকতা লাভ করে শহিদ দিবস এখন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। বিশ্বব্যাপী স্মরণ করা হয় বিশেষ মর্যাদায়।
ভাষা চর্চার বিষয়। বহতা নদীর মত গতিশীল। যে ভাষার জন্য এত ত্যাগ, সে ভাষাকে আমরা কতটুকুই বা সম্মানের আসনে রাখি? শিক্ষাকেন্দ্রসমূহে মাতৃভাষার শুদ্ধ চর্চার জন্য কেমন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়?
আমরা নিজেরাও এর যথাযথ প্রয়োগ বা ব্যবহারে কতটুকু দায়িত্বশীল। হালের অবস্থা দেখলে বোঝা যায় বাংলা ভাষার যথাযথ প্রয়োগ কোথায় গিয়ে ঠেকেছে।
ফেব্রæয়ারি মাস আসলেই আসে ভাষার কথা। যাঁদের আত্মত্যাগে বাংলা আমাদের রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে তাঁদের সম্মানের জন্য বিভিন্ন আনুসঙ্গিকতার মাধ্যমে ভাষার প্রয়োগ বা চর্চায় যেন ধারাবাহিকতা বজায় রাখি। ভাষা শহিদদের দেশ বা জাতি কি কিছু দিতে পেরেছে? অন্তত যথাযথ প্রয়োগ বা চর্চা হলেও তাঁদের আত্মা শান্তি পাবে।
বাংলা হোক সর্বজনীন। সমৃদ্ধ বাংলা ভাষার শুদ্ধ চর্চা বা প্রয়োগের চেষ্টা করি সকলেই।