১৮ ডিপোতে শ্রমিকদের কর্মবিরতি

বন্দর ও ডিপোতে পণ্যবাহী কনটেইনার পরিবহন বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক

32

নিয়োগপত্রের দাবিতে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ১৮টি ডিপোতে আমদানি-রপ্তানি পণ্যবাহী কন্টেইনার পরিবহন বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকেরা। গতকাল বুধবার সকাল থেকে হঠাৎ করে কন্টেইনার পরিবহন বন্ধ করে দেয় তারা। বুধবার রাত ১১ টায় রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কন্টেইনার পরিবহন বন্ধ রেখেছে শ্রমিকরা। এতে আমদানি-রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
জানা যায়, নিয়োগপত্রের দাবিতে গতকাল বুধবার হঠাৎ করে কর্মবিরতি শুরু করে শ্রমিকরা। এ কারণে বন্দর থেকে ডিপোতে আর ডিপো থেকে বন্দরে পণ্যবাহী কন্টেইনার পরিবহন আনা-নেওয়া যাচ্ছে না। তবে রপ্তানি পণ্য না নিয়ে কোনো জাহাজ বন্দর ছেড়ে যায়নি। এইভাবে কর্মবিরতি চলমান থাকলে আজ রপ্তানি পণ্য জাহাজে তুলে দেওয়া যাবে না বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।
চট্টগ্রামের ১৮টি ডিপো থেকে ৮৯ শতাংশ রপ্তানিপণ্য কন্টেইনারে বোঝাই করে চট্টগ্রাম বন্দর হয়ে জাহাজে করে বিদেশে রপ্তানী করা হয়। আর ৩৭টি আমদানি পণ্যবাহী কন্টেইনার বন্দর থেকে ডিপোতে নিয়ে গিয়ে খালাস করা হয়। এসব পণ্য পরিবহনে ৮০০ প্রাইম মুভার ট্রেইলার রয়েছে ডিপো মালিকদের। এসব গাড়ি করে বন্দর থেকে ডিপোতে আর ডিপো থেকে বন্দরে কন্টেইনার আনা-নেওয়া করা হয়। কর্মবিরতির কারণে এসব গাড়িতে করে পণ্য পরিবহন বন্ধ রয়েছে।
বেসরকারি কন্টেইনার ডিপো মালিক সমিতি ‘বিকডা’র সচিব রুহুল আমিন পূর্বদেশকে বলেন, নিয়োগপত্রের দাবিতে শ্রমিকরা কর্মবিরতি পালন করছে। এতে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ডিপোতে আর ডিপো থেকে বন্দরে পণ্যবাহী কন্টেইনার পরিবহন বন্ধ হয়ে গেছে। এখনো পর্যন্ত কন্টেইনার পরিবহন বন্ধ রেখেছে শ্রমিকরা। তবে এখনো পর্যন্ত শ্রমিকদের সাথে আমাদের কোনো আলোচনা কিংবা বৈঠক হয়নি। তিনি জানান, শ্রমিকদের দাবি নিয়ে আলোচনা চলার মধ্যেই হঠাৎ করে এই কর্মবিরতি পালন করছেন তারা। এ কারণে আমদানি-রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।
প্রাইম মুভার ট্রেইলার মালিক সমিতির সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক বলেন, শ্রমিকেরা দাবি নিয়ে এই কর্মসূচি পালন করছেন। আমদানি ও রপ্তানী পণ্যবাহী কন্টেইনার পরিবহন বন্ধ হয়ে গেছে। তবে প্রাইম মুভার ট্রেইলার মালিকদের সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই।