বটতলী মোটর স্টেশনে গণশৌচাগার না থাকায় দুর্ভোগ

লোহাগাড়া প্রতিনিধি

5

তছলিমা আক্তার। একজন গৃহিণী ও দু’সন্তানের জননী। লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নে তার শ্বশুর বাড়ি। স্বামী প্রবাসী। সেই সুবাদে নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে প্রতিনিয়ত বটতলী মোটর স্টেশনে আসতে হয়। বাড়িতে কেউ না থাকায় যেখানে যায় দু’সন্তানকেই সাথে নিয়ে যেতে হয়। গত ৩০ নভেম্বর সকালে বটতলী মোটর স্টেশনে এসে বড় সন্তানটি বেকায়দায় পড়ে প্রয়োজনীয় শৌচ কাজে বিঘ্ন ঘটায়। কারণ গণশৌচাগার না থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে তার।
লোহাগাড়া বটতলী মোটর স্টেশন দক্ষিণ চট্টগ্রামের একটি অন্যতম বাণিজ্যিক কেন্দ্র। কিন্তু গণশৌচারগার না থাকায় প্রায় সময়ই এভাবে চরম দুর্ভোগের শিকার হন পথচারি সহ অন্যরা। তছলিমা বেগম নিজেও অনেক সময় গণশৌচারগার না থাকায় সমস্যার সম্মুখীন হন। তিনি আরো জানান, কয়েকটি খাবার হোটেলে টয়লেট থাকলেও তা পর্যাপ্ত না। অনেক সময় হোটেল মালিক-কর্মচারীর কটুক্তি শুনতে হয়। ফলে একজন মহিলা হিসেবে অনেক বেকায়দায় সম্মুখীন হতে হয়। তছলিমা আক্তারের মতো হাজারো নারী-পুরুষ ক্রেতা-বিক্রেতাকে প্রতিদিন লোহাগাড়া উপজেলা সদরের বটতলী মোটর স্টেশনে এসে গণশৌচারগারের অভাবে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
লোহাগাড়া শহর উন্নয়ন কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী জানান, বটতলী মোটর স্টেশনে ছোট-বড় প্রায় ২০১টি মার্কেট আছে। এতে অন্তত ১০ হাজার জন মালিক-কর্মচারীসহ প্রতিদিন লক্ষাধিক মানুষের সমাগম হয় এ স্টেশনে। গণশৌচাগার না থাকায় প্রতিদিন সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে শিশু, নারী, ক্রেতা-বিক্রেতাদের। তিনি আরো বলেন, গতো দু’বছর পূর্বে স্থানীয় সাংসদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত আবেদন করেও কোন সুফল পাননি। লোহাগাড়া শহর পরিচালনা কমিটির আদায়কৃত অর্থ ব্যয় করা হয় পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন ও নিরাপত্তার কাজে। সরকারি অনুদান ছাড়া গণশৌচাগার নির্মাণ সম্ভব নয বলে জানান তিনি। লোহাগাড়া বটতলী মোটর স্টেশনস্থ স্টার সুপার মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাত্তার সিকদার জানান, উপজেলার প্রাণকেন্দ্র বটতলী মোটর স্টেশনে গণশৌচারগার না থাকায় ক্রেতা-বিক্রেতাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে নারী-শিশুদের এই দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
স্থানীয়রা জানান , স্টেশনে দিন দিন নতুন মার্কেট নির্মিত হচ্ছে কিন্তু নিত্যপ্রয়োজনীয় গণশৌচাগার নির্মাণের কোন খবর নেই। প্রতিদিন বভিন্ন দোকানে কর্মরত কর্মচারী বটতলী মোটর স্টেশন থেকে ২/৩ কিলোমিটার দূরে অন্যের পুকুরে গিয়ে গোসল করে। যার কারণে অনেককে অনেক সময় কটুক্তি শুনতে হয়। যা খুবই দুঃখজনক।
তাই লোহাগাড়া বটতলী মোটর স্টেশনে গণশৌচাগার নির্মাণ করে ক্রেতা-বিক্রেতা ও সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন সংশ্লিষ্টরা এমনটি প্রত্যাশা ভুক্তভোগীদের।