ফেসবুকের নতুন ফিচার ‘ওয়াচ’ নিয়ে শোরগোল

কামরুদ্দীন নিশান

45

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ‘ওয়াচ’ নামে নতুন একটি ভিডিও সেবা চালু করেছে। শুধু ইউটিউব নয় অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিস যেমন- অ্যামাজন ভিডিও, নেটফ্লিক্স, বিবিসির আইপ্লেয়ার ও টিভি চ্যানেলের সঙ্গে টেক্কা দিতে ওয়াচ সেবা চালু করেছে ফেসবুক।
গত সেপ্টেম্বর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত কিছু ফেসবুক ব্যবহারকারী এ সেবা ব্যবহারের সুযোগ পাচ্ছেন। পরবর্তীতে সারাবিশ্বের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য সেবাটি উন্মুক্ত করা হয়।
ওয়াচ ট্যাবের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন টিভি শো যেমন- রিয়েলিটি শো, খেলা কিংবা কমেডি শো দেখতে পারবেন। ওয়াচের বেশিরভাগ ভিডিও তৈরি করবেন পেশাদার ভিডিও নির্মাতারা। যেগুলোর মধ্যে কিছু থাকবে সোশ্যাল নেটওয়ার্কের অর্থায়নে নির্মিত হবে।
ফেসবুকের হেড অফ ভিডিও ফিজি সিমো বলেন, মানুষ ভিডিও দেখতে তুলনামূলক বেশি পছন্দ করছে। সামাজিক কার্যক্রম বৃদ্ধির অন্যতম মাধ্যম হতে পারে ভিডিও, এমন একটি ধারণার ওপর ওয়াচ সেবা আনা হয়েছিল।
তিনি বলেন, ‘২০১৮ সালে শুরুর পর ফেসবুক ওয়াচে ব্যবহারকারীর মোট ব্যয় করা সময় ১৪ গুণ বেড়েছে। প্রতি মাসে যুক্তরাষ্ট্রে পাঁচ কোটিরও বেশি মানুষ অন্তত এক মিনিট ওয়াচ ভিডিওগুলো দেখতে ওয়াচ প্ল্যাটফর্মে আসেন।
কী আছে ওয়াচে?
‘ওয়াচ’ নামের এই ভিডিও ট্যাবটি নিজের মত করে সাজিয়ে নেওয়া যাবে। যাতে ব্যবহারকারীরা নতুন শো দেখতে পারেন। তাদের বন্ধুরা কী দেখছেন তার ওপর ভিত্তি করে নতুন নতুন শো-ও খুঁজে পাবেন তারা।
ভিডিওগুলো নিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে আলোচনার পাশাপাশি গ্রæপ তৈরি করে একসঙ্গে দেখারও সুযোগ পাওয়া যাবে।
চাইলে এতে ওয়াচ লিস্টও তৈরি করে নিতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। ওয়াচলিস্ট তৈরি করার মাধ্যমে পেইজের প্রথম দিকেই নিজেদের পছন্দের অনুষ্ঠানগুলোর ভিডিও দেখা যাবে।
অন্যান্য প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে এর পার্থক্য হলো এতে কথা বলার পাশাপাশি ভিডিও দেখা যাবে। বন্ধুরা কি দেখছে তা জানানোর জন্য থাকবে ‘হোয়াট ফ্রেন্ডস আর ওয়াচিং’ সেকশন। কোন ভিডিও দেখে ফেইসবুক ব্যবহারকারীরা সবচেয়ে বেশি হা হা প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তা জানার জন্য থাকবে ‘হোয়াটস মেকিং পিপল লাফ’ সেকশন।
আয়ের সুযোগ
বর্তমানে শুধু যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের সীমিত সংখ্যক ভিডিও নির্মাতারাই বিজ্ঞাপন থেকে অর্থ পাবেন। তবেভবিষ্যতে সব কনটেন্ট নির্মাতাই তাদের ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখানোর সুবিধা পাবেন। বিজ্ঞাপন আয়ের ৫৫ শতাংশ পাবেন ভিডিও নির্মাতারা আর ৪৫শতাংশ পাবে ফেইসবুক।
ফেসবুকের হেড অফ ভিডিও ফিজি সিমো বলেন, ভিডিও কন্টেন্টেইনারদের অর্থ উপার্জনের সুযোগ করে দিতে আমরা নানান পরীক্ষা নিরীক্ষা করছি। ব্র্যান্ডের কনটেন্ট ও তাদের ফ্যানদের সরাসরি যুক্ত করতে সাবসক্রিপশন মডেলও থাকবে। ফ্যান সাবসক্রিপশন মডেলটি শিগগিরই চালু হবে।