প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানান অনিয়মের অভিযোগ

চন্দনাইশ প্রতিনিধি

29

উপজেলার সাতবাড়িয়া হাজীর পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দুলারী বড়–য়ার বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, ৯ বছরের অধিককাল একই বিদ্যালয়ে, যথাসময়ে স্কুলে না আসা, ম্যানেজিং কমিটির সাথে সুসম্পর্ক না রাখাসহ ১০টি অভিযোগ এনে বদলীর আবেদন জানিয়েছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা।
হাজীর পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দুলারী বড়–য়া উল্লেখিত বিদ্যালয়ে ২০১০ সালের ১৯ অক্টোবর পদোন্নতি পেয়ে যোগদান করারপর অদ্যবদি একই বিদ্যালয়ে চাকরী করার কারণে স্বেচ্ছাচারিতা, ৯ বছরের অধিককাল একই বিদ্যালয়ে, যথাসময়ে স্কুলে না আসা, ম্যানেজিং কমিটির সাথে সুসম্পর্ক না রাখাসহ ১০টি অভিযোগ এনে বদলীর আবেদন জানিয়েছেন শিক্ষার্থী অভিভাবকেরা। এ সকল আবেদন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা শিক্ষা অফিসার, পরিচালনা পরিষদ সভাপতিকে কপি দিয়েছেন। এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক দুলারী বড়–য়া জানান, তিনি নয়, অনেক শিক্ষক এর চেয়ে বেশি সময় ধরে বিভিন্ন বিদ্যালয়ে চাকরী করছেন। তিনি ২০১০ সালে ১৯ অক্টোবর এ বিদ্যালয়ে যোগদান করারপর শিক্ষার পরিবেশ, প্রশাসনিক কার্যক্রম যথাযথভাবে পরিচালনা করেছেন।
বিধায় কিছু স্বার্থনেশী মহল ঈর্শ্বানিত হয়ে তাদের স্বার্থে ১ জন লোক কয়েকজন অভিভাবকের স্বাক্ষর দিয়ে এ আবেদন করেছেন। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাাপ্ত) হাসান আল মামুন অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেছেন, এ ব্যাপারে তদন্তের জন্য সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মনিরুল ইসলামকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
তিনি তদন্ত করে প্রতিবেদন পাওয়া সাপেক্ষে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বরাবরে প্রেরণ করা হবে বলে জানান। পরিচালনা পরিষদের সভাপতি এড. কুতুব উদ্দীন মো. ইস্তেফাজ অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেছেন, প্রায় অভিযোগই সত্য। তিনি দীর্ঘদিন একই প্রতিষ্ঠানে চাকরী করার কারণে তেমন কাউকে মানতে চান না। বিদ্যালয়ে আসেন দেরীতে। এছাড়া তিনি এ প্রতিষ্ঠান সহকারী শিক্ষক হিসেবেও ৫ বছরের অধিক চাকরি করেছেন। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে সত্যতা পেলে পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত বলে মনে করেন।