প্রথম বিয়ের সিদ্ধান্তটা ভুল ছিলো : পিয়া বিপাশা

47

দ্বিতীয় বারের মতো বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন বাংলাদেশের তারকা মডেল ও অভিনেত্রী পিয়া বিপাশা। আসছে বছর ইউরোপের একজন আর্মি পাত্রের সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয়েছে তার। বিয়ে করে সেখানেই স্থায়ী হবেন, এমনটাই গুঞ্জন।
তবে বরাবরই প্রথম বিয়ে নিয়ে চুপ ছিলেন পিয়া বিপাশা। চ্যানেল আইয়ের নিয়মিত আয়োজন ‘৩০০ সেকেন্ড’-এর ৭৬তম অ্যাপিসোডে এসে অকপটে বললেন নিজের অতীত নিয়ে।
শাহরিয়ার নাজিম জয়ের উপস্থাপনায় এই শোতে এসে নিজের প্রথম বিয়েকে ‘ভুল সিদ্ধান্ত’ বলে মন্তব্য করেন পিয়া বিপাশা। তিনি বলেন, ছোট ছিলাম, বিয়ের বিষয়টা একটা ভুল সিদ্ধান্ত ছিলো। আঠারো বছরের আগে কারো বিয়ে করা উচিত না। অথচ যখন আমার বাচ্চা হয়, তখন আমার বয়স ছিলো মাত্র ষোল বছর!
নিজের ব্যক্তিগত তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে পিয়ার মন্তব্য, ‘প্রথম ভালোবাসাকে কখনোই সিরিয়াসলি নেয়া উচিত না।’
কিন্তু তাই বলে বিদেশি ছেলেকে বিয়ে? জয়ের এমন প্রশ্নে পিয়া বলেন, ‘বাংলাদেশে মনের মতো ছেলে পাইনি। নসিবে বিদেশি ছেলে ছিলো, তাই হয়তো!’
পিয়ার মন বাংলাদেশে কেমন ছেলে খুঁজছিলো? জয়ের এমন প্রশ্নেরও উত্তর দেন এই মডেল ও অভিনেত্রী। বললেন, সবাই জানেন আমার একটি বাচ্চা রয়েছে। পরিবারেরও চাপ ছিলো যেন আমি দ্বিতীয়বার বিয়ে করে সংসার করি, যেহেতু আমার বাচ্চা বড় হয়ে যাচ্ছে। আমার চিন্তা ছিলো, যাকেই আমি বিয়ে করি সে যেনো আমার বাচ্চাকে তার নিজের বাচ্চার মতো দেখে।
শোবিজ নিয়ে নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করে পিয়া নিজের ভালো লাগার কথা জানান এভাবে: আমি যখন ২০১২ সালে লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগিতায় ছিলাম, তখন কিন্তু আমার মেয়ে আছে বিষয়টি কেউ জানতো না। যখন এই রিয়েলিটি শো শেষ হয়, এবং মডেলিংয়ে যোগ দেই তখন মেয়ে আছে খবরটি প্রকাশ করি। তখন কিন্তু সিনিয়র মডেলরাও আমাকে ‘বাচ্চার মা’ বলে হাসাহাসি করেছে। ‘এক বাচ্চার মা আসছে’ বা ‘বাচ্চার বাবার ঠিক নেই’-এরকম কথা আমি বহুবার শুনেছি। কিন্তু তখনতো আমি নতুন ছিলাম। তবে শুরুর দিকে খুব ভালো ভালো কাজ করেছি, দুই তিন মাসের মধ্যে মানুষ আমাকে চিনতে পেরেছে। তো যে মানুষগুলো আমাকে ঘৃণা করতো, আমাকে নিয়ে হাসাহাসি করতো সেই মানুষগুলোই এখন আমাকে অনেক রেসপেক্ট করে।