উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ

প্রথম দিনে আ.লীগের দেড় শতাধিক ফরম বিক্রি

4

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রির প্রথম দিনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে প্রায় দেড় শতাধিক মনোনয়নপ্রত্যাশী ফরম কিনেছেন। গতকাল সোমবার সকাল ১১টা থেকে মনোনয়ন ফরম বিতরণের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ফরম বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।
এদিন সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্নভাবে চলে মনোনয়ন ফরম বিতরণ। তবে দলের সাধারণ সম্পাদক ও দপ্তর সম্পাদক সংসদ অধিবেশনে থাকায় মোট কতগুলো ফরম বিক্রি হয়েছে সে বিষয়ে দলীয় কার্যালয় থেকে নির্দিষ্ট কোনো সংখ্যা জানানো হয়নি। কার্যালয়ের কর্মকর্তা এবং আওয়ামী লীগের উপকমিটির সদস্য জিএম মাসুদ জানান, দেড় শতাধিক ফরম বিক্রি হয়েছে। খবর বাংলানিউজের
দিনের প্রথম মনোনয়ন ফরম কেনেন কেন্দুয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী আসাদুল হক ভূঁইয়া। এরপর দিনভর একে একে ফরম কেনেন মনোনয়নপ্রত্যাশীরা। তবে প্রথম দিন অনেক জেলা থেকেই ধানমন্ডি কার্যালয়ে এসে পৌঁছায়নি সুপারিশকৃত প্রার্থীর তালিকা। ফলে সেসব জেলার অন্তর্ভুক্ত উপজেলা চেয়ারম্যান পদের জন্য মনোনয়ন ফরম কিনতে আসা অনেককেই ফরম না কিনে ফিরে যেতে হয়।
মনোনয়ন ফরম কেনা বেশ কয়েকজন প্রার্থী দলীয় সিদ্ধান্তে মনোনয়ন পেলে জনগণের জন্য কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রæতি দেন। মনোনয়ন না পেলেও দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নেবেন বলেও জানান তারা।
প্রথম ফরম কেনা আসাদুল হক ভূঁইয়া বলেন, দল যে সিদ্ধান্ত নেবে আমি তাতেই সন্তুষ্ট থাকবো। অন্য যাকে দল বেছে নেবে তার জন্যে প্রয়োজনে নির্বাচনী প্রচারণায় কাজ করবো। তবে আমার বিশ্বাস দল আমাকে মনোনয়ন দেবে। আর এমনটা হলে দলের জন্য বিজয় অর্জন করে এলাকার জনগণের সেবা করবো।দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে দলের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে সোমবার দুপুরে সাংবাদিকদের বলেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আর কেউ দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হলে পরে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও সাংসদ আবদুস সোবহান গোলাপ বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দলের নিয়মই হলো যে, বিদ্রোহী প্রার্থী আজীবনের জন্য দল থেকে বহিষ্কৃত হবেন। তবে আমাদের মনে হয় না যে, এখন কেউ এই ঝুঁকি নেবেন। ’৭৫ এর পর এবারের জাতীয় নির্বাচনে সবথেকে কম বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছে আমাদের। জাতীয় নির্বাচনেই যেখানে সেভাবে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়নি সেখানে উপজেলা নির্বাচনেও হবে না বলেই আমাদের মনে হয়।
এদিকে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হলেও মহিলা ও পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীক ছাড়াই নির্বাচন হওয়ার সিদ্ধান্ত ছিলো। তবে সোমবার সন্ধ্যায় কার্যালয় সূত্রে জানা যায় মহিলা ও পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদেও দলীয় প্রতীকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
গতকাল সোমবার থেকে শুরু হওয়া আওয়ামী লীগের ফরম বিতরণ কার্যক্রম চলবে ৮ ফেব্রæয়ারি দুপুর পর্যন্ত। ৫৯২টি উপজেলার মধ্যে চারটি ধাপে ৫৮০টি উপজেলায় অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন। এই সবগুলো উপজেলার জন্যই ফরম বিক্রি করছে আওয়ামী লীগ।