পুঁজিবাজারে বড় দরপতন

21

গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে দরপতনের যে ধারা দেশের পুঁজিবাজারে শুরু হয়েছিল, তিনদিনে তা ব্যাপকতা লাভ করেছে। প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তিন কার্যদিবসে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স প্রায় ১৫০ পয়েন্ট পড়ে গেছে।
চলতি সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন সোমবার ডিএসইএক্স কমেছে প্রায় ৫৮ পয়েন্ট। রবিবার কমেছিল ৫২ পয়েন্ট। গত সপ্তাহের শেষ দিন বৃহস্পতিবার কমেছিল ৩৮ পয়েন্টের বেশি। টানা এই দরপতনের কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না বাজার বিশ্লেষক ডিএসইর সাবেক সভাপতি ও বর্তমান পরিচালক রকিবুর রহমান। তিনি বলেন, “সার্বিক বিবেচনায় বাজার এখন ভালো হওয়ার কথা। কিন্তু কেন দরপতন হচ্ছে তা আমরা বুঝতে পারছি না।
“পুঁজিবাজার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ইতিবাচক বক্তব্য, চীনা কনসোর্টিয়ামের কাছ থেকে পাওয়া অর্থ তালিকাভুক্ত কোম্পানিতে তিন বছরের জন্য বিনিয়োগ করলে ১০ শতাংশ কর ছাড়ের ঘোষণা, ইতিবাচক অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কারণে আমরা ভেবেছিলাম বাজার ভালো হবে। কিন্তু হচ্ছে তার উল্টো।” খবর বিডিনিউজের
বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, সোমবার ডিএসইতে ৫৮০ কোটি ৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে ১৬২ কোটি ৩০ লাখ টাকা কম। রবিবার ডিএসইতে ৭৪২ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।
গতকাল সোমবার ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নিয়েছে ৩৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৪৯টির, কমেছে ২৬৫টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টি কোম্পানির দর।
ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ৫৭ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৩৫৭দশমিক ৫৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ২৩৩ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ১৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ৮৮৩ পয়েন্টে।
অন্যদিকে সোমবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ৩৫ কোটি ৫৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২২২ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৬ হাজার ৪৭৮ পয়েন্টে।
লেনদেন হয়েছে ২৪৫টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২৭টির, কমেছে ২০১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৭টির দর।