পার্ল হারবার ঘাঁটিতে গুলিতে নিহত ২

4

যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াই অঙ্গরাজ্যের ঐতিহাসিক পার্ল হারবার সামরিক ঘাঁটিতে মার্কিন নৌবাহিনীর এক নাবিকের গুলিতে দুই বেসামরিক নিহত ও একজন আহত হওয়ার পর হামলাকারী আত্মহত্যা করেছে বলে ঘাঁটিটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। বুধবার গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটেছে বলে নিশ্চিত করেছেন পার্ল হারবার-হিক্যাম যৌথ ঘাঁটির এক মুখপাত্র। ‘টুইটারে ঘাঁটি কর্তৃপক্ষ বলেছে, প্রায় দুপুর ২টা ৩০ মিনিটের দিকে ঘটনাটি ঘটেছে। নিরাপত্তাজনিত কারণে জেবিপিএইচএইচ এ প্রবেশ/ গেইটগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে।’ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, হতাহতদের এবং বন্দুকধারীর পরিচয় প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ। কী কারণে গুলিবর্ষণের এ ঘটনা ঘটেছে সে বিষয়েও কিছু বলেনি। কিন্তু গণমাধ্যমের খবরে নিহতরা সবাই পুরুষ বলে জানানো হয়েছে।
এক সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তারা বলেছেন, “বন্দুকধারী নিজের গুলিতে আহত হয়ে মারা গেছেন।” হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত তৃতীয় জনের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা। আঞ্চলিক কমান্ডার রিয়ার অ্যাডমিরাল রবার্ট চ্যাডউয়িক বলেন, “দুই জন মারা গেছে, আমরা এটি নিশ্চিত করছি। আরেকজন স্থানীয় হাসপাতালে স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছেন। আমি আরও জানাচ্ছি বন্দুকধারী, যাকে সম্ভবত ইউএসএস কলম্বিয়া এসএসএন ৭৭১ এ দায়িত্বরত নাবিক বলে শনাক্ত করা হয়েছে, নিজের গুলিতে আহত হয়েছে মারা গেছেন বলে প্রতীয়মান হয়েছে।”
এর আগে ঘাঁটিটির কর্মকর্তারা টুইটারে জানিয়েছিলেন, হতাহত তিন জনই বেসামরিক এবং তারা মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের হয়ে কাজ করছিলেন। টুইটারে দেওয়া এক বিবৃতিতে হাওয়াইয়ের গভর্নর ডেভিড ইগে বলেছেন, “এই শোচনীয় ঘটনার বিষয়ে আমাদের গভীর শোক প্রকাশের ক্ষেত্রে আমি হাওয়াইবাসীর সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করছি এবং গোলাগুলির ঘটনায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের জন্য উদ্বেগ বোধ করছি।”
ঘাঁটিটির দাপ্তরিক নাম ব্যবহার করে তিনি আরও বলেন, “জয়েন্ট বেইস পার্ল হারবার-হিক্যামে নিরাপত্তা বাহিনীর তদন্তে ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য এখনও আসা অব্যাহত আছে।”