পাঠানটুলীতে দুই গ্রূপের গোলাগুলি, নিহত ১

262

ডবলমুরিং থানার ২৮ নম্বর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের মগপুকুর পাড় এলাকায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত ও বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন। গতকাল রাত ৮টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম আজগর আলী বাবুল (৫৫)। এছাড়াও মো. মোতালেব নামে গুলিবিদ্ধ এক যুবককে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তবে হতাহতরা কোন পক্ষের তা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।
ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সদীপ কুমার দাশ পূর্বদেশকে বলেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ঘটনাটি ঘটেছে। এতে আজগর আলী বাবুল (৫৫) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও একজনকে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম পূর্বদেশকে বলেন, ‘ডবলমুরিংয়ে গুলিবিদ্ধ হওয়া মো. মোতালেব নামে একজনকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। পরে গুলিবিদ্ধ ওই ব্যক্তিকে মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে নিয়ে গেছে।’
স্থানীয়রা জানান, মগপুকুর পাড় এলাকায় গণসংযোগ করছিলেন ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুল কাদেরের সমর্থকরা। এসময় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম বাহাদুরের সমর্থকরা তাদের উপর হামলা চালায়। ঘটনাস্থলেই গুলিবিদ্ধ হয়ে একজনের মৃত্যু হয়। আরো কয়েকজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়।কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদের গত নির্বাচনে বিজয়ী কাউন্সিলর হলেও এবার মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে প্রতিপক্ষ প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচন করছেন।
এর আগে গতকাল মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুরের কর্মী মোস্তফা কামাল টিপু, মাহবুব, ইকবাল সাহেদ, জাবেদ, ফয়সাল, দেলোয়ারসহ বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে অভিযোগ করেন। এতে নির্বাচনী এলাকায় মতিয়ারপুল হতে কদমতলীস্থ আবেদীয় স্কুল গলি পর্যন্ত পোস্টার ছেঁড়া, গনসংযোগে বাধা ও হামলা, কর্মী-সমর্থকদেও নির্বাচনী প্রচারণায় না আসার হুমকি দেয়ার অভিযোগ আনা হয়। অভিযোগটি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণে সদরঘাট থানার অফিসার ইনচার্জকে অবহিত করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. হাসানুজ্জামান।