পাক-ভারত মহারণ আজ

পূর্বদেশ স্পোর্টস ডেস্ক

4

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মানেই টানটান উত্তেজনা। সেটি যদি হয় বিশ্বকাপের ম্যাচ তাহলে তো কোনো কথায় নেই! বিশ্বকাপে আজ দিনের একমাত্র ম্যাচে মুখোমুখি হবে এশিয়ার দুই শক্তিশালী দল ভারত ও পাকিস্তান। ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায়।
টুর্নামেন্টে এটি হবে ভারতের তৃতীয় ম্যাচ। তবে পাকিস্তানের এটি পঞ্চম ম্যাচ। ভারত আগের তিনটি ম্যাচের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারায় ভারত। আর ভারত ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়।
অন্যদিকে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হারের মাধ্যমে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করলেও পরে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে হারায় পাকিস্তান। এরপর পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। এরপর অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারে সরফরাজ আহমেদের দল। তাই আবার জয়ের ফেরার জন্য মরিয়া পাকিস্তান।
দুই দলের দ্বৈরথ নিয়ে সবসময় উত্তেজনায় থাকেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। এর আগে বিশ্বকাপে ৬ বারের সাক্ষাতে প্রতিবারই জিতেছে ভারত।
১৯৯২ সালে প্রথমবার বিশ্বকাপে মুখোমুখি হয় দুই দেশ। ভারত প্রথমে ব্যাট করে ২১৬ রান করে। জবাবে ১৭৩ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তানের ইনিংস।
১৯৯৬ সালে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে বেঙ্গালুরুতে আবার মুখোমুখি হয় দুই দেশ। ভারত প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ২৮৭ রান করে। জবাবে পাকিস্তান ৯ উইকেটে ২৪৮ রান করে।
১৯৯৯ সালে ম্যানচেস্টারে সুপার সিক্সের ম্যাচে আবার মুখোমুখি হয় দুই দল। ভারত প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২২৭ করলেও পাকিস্তান ১৮০ রান অলআউট হয়ে যায়।
২০০৩ সালে গ্রুপের ম্যাচে চতুর্থ বারের জন্য মুখোমুখি হয় দুই দেশ। পাকিস্তান প্রথমে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ২৭৩ রান করে। সেঞ্চুরি করেন সইদ আনোয়ার। ভারত ৪৫ ওভারের মধ্যেই ৪ উইকেটে এই রান তুলে ফেলে। শচীনের অনবদ্য ৯৮ রান ভারতকে জয় তুলে নিতে সাহায্য করে। ম্যাচের সেরা হন শচীন টেন্ডুলকার।
২০১১ সালে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ফের দেখা হয় দুই দলের। ভারত প্রথমে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ২৬০ রান করে। ২৩১ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তানের ইনিংস। আবার শচীনের অনবদ্য ৮৫ রানের ইনিংস দেখতে পাওয়া যায় এই ম্যাচে। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন শচীন।
২০১৫ সালের বিশ্বকাপে ষষ্ঠবার দেখা হয় দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর। গ্রুপ ম্যাচে ভারত প্রথমে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ৩০০ রান করে। পাকিস্তান ৪৭ ওভারে মাত্র ২২৪ রানেই গুটিয়ে যায়। ব্যাট হাতে বিরাট কোহলির অনবদ্য ১০৭ রান এবং বল হাতে মোহাম্মদ শামির ৪ উইকেট ষষ্ঠবার ভারতকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জিততে সাহায্য করে। ম্যাচের সেরা হন বিরাট কোহলি।