পহেলা বৈশাখ উদযাপন

10

চন্দনাইশে গাছবাড়িয়া মডেল স্কুল : চন্দনাইশ উপজেলাস্থ গাছবাড়িয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠান মালার মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষকে বরণ করা হয়। মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নতুন বছরের দিন শুরু করা হয়। রকমারি আয়োজনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেন মধ্যাহ্নভোজে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ মফিজুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হাসান আল মামুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টর মো. আবদুর রাজ্জাক, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আইয়ুব, সদস্য আইনুল হুদা চৌধুরী, শারমিন আকতার, আকতার হোসাইন, লোকমান হাকিম, আবুল কাশেম ও মোহাম্মদ আবছার। শিক্ষক মো. নুরুল আনোয়ারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ঝর্ণা দে, জোবাইদা নাছরিন, জাহানারা বেগম, কামাল উদ্দিন, লতিফা জাহান আফরোজ, মাসুমা নিশাত, সাম্মী আকতার, লাভলী রাণী শীল, সাবরিনা সুলতানা চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্টানে অংশগ্রহনকারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
রাঙ্গুনিয়া : রাঙ্গুনিয়ায় ঐতিহ্যবাহী জাহাঙ্গীর আলম মন্ডলের বলি খেলার তৃতীয় আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রাঙ্গামাটির রুবেল বলি। পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে গত ১৫ এপ্রিল উপজেলার দক্ষিণ রাজাগনর ইউনিয়নের সোনারগাঁও রাস্তার মাথা এলাকায় এ আয়োজন করেন স্থানীয় সোনারগাঁও যুব সমাজ। বলি খেলায় উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজারো দর্শকের সমাগম হয়। বিখ্যাত বলিদের খেলার নৈপুণ্যে উচ্ছাস দেখা যায় দর্শকদের মাঝে। মাঠে দর্শকদের মাঝে প্রাণের উৎসব সৃষ্টি হয়। পরিচালনায় ছিলেন শিক্ষক মো. জাহাঙ্গীর আলম। একে একে পরাস্ত করে চূড়ান্ত পর্বে অংশ নেন রাঙ্গামাটির রুবেল বলি ও কাউখালীর মো. হাছান বলি। বিকাল ৫টার দিকে সবাই নড়েচড়ে বসছিলেন একটি জমজমাট ও উত্তেজনাকর লড়াই দেখবেন বলে। কিন্তু খেলা শুরুর মাত্র ৩ মিনিটের মধ্যে হাছানকে কুপোকাত করে চ্যাম্পিয়ন হলেন রুবেল বলী। সন্ধ্যায় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দক্ষিণ রাজানগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আবদুর রহমান তালুকদার।

প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) ও রাজানগর ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সামশুল আলম তালুকদার। স্বপন বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ রাজানগর ইউপি চেয়ারম্যান আহমদ ছৈয়দ তালুকদার, ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন চৌধুরী মিল্টন, সোনারগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, কবির আহমদ, ডা. ফজলুল কাদের তালুকদার, মানিক বড়য়া, ইলিয়াছ কবির, কাঞ্চন বড়ুয়া, টিবলু বড়ুয়া, খলিলুর রহমান, ভবতোষ বড়ুয়া প্রমুখ। পরে চ্যাম্পিয়ন রাঙ্গামাটির রুবেলন বলি, দ্বিতীয় কাউখালীর হাছান বলি ও তৃতীয় কুতুবদিয়ার সাইফু বলি সহ বিজয়ী সকল বলিদের পুরস্কার বিতরণ করা হয়। ২০০৬ সালে চট্টগ্রামের জব্বারের বলি খেলায় চ্যাম্পিয়ন জাহাঙ্গীর আলম মন্ডল রাঙ্গুনিয়া সহ আশেপাশের কয়েকটি উপজেলায় বলি খেলায় পুরস্কারপ্রাপ্ত হয়েছিলেন। তার নামে অনুষ্ঠিত এই বলি খেলা ভবিষ্যতেও অব্যাহত রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি সহ এলাকাবাসী।
চন্দনাইশ : উপজেলার ফতেনগর বড়ুয়া পাড়ায় বাংলা বর্ষ বিদায় ও বরণ উপলক্ষে ২ দিনব্যাপী ব্যাপক কর্মসূচি পালন করা হয়। গত ১৩ এপ্রিল সকাল থেকে দিনব্যাপী ফতেনগর উত্তর সুনীতি বিহারে ক্রীড়া, সাংস্কৃতি ও সাহিত্য প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। গত ১৪ এপ্রিল বর্ষবরণ উপলক্ষে বৈশাখী উৎসব, খেলাধূলা, ও মনোজ্ঞ সাংকৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ফতেনগর অহিংসা সেবক সংঘের উদ্যোগে সন্ধ্যায় বিহার মাঠে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি করআইনজীবী জয়শান্ত বিকাশ বড়ুয়া। প্রধান অতিথি ছিলেন চন্দনাইশ থানা অফিসার ইনচার্জ কেশব চক্রবর্তী। উদ্বোধক ছিলেন সিনিয়র এড. প্রভূতি রঞ্জন বড়ুয়া।

বিশেষ অতিথি ছিলেন যথাক্রমে চেয়ারম্যান আমিন আহমেদ রোকন, চন্দনাইশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেন, মৃদুল বড়ুয়া, শিল্পী তাপস কুমার বড়ুয়া ও ডা. রতন বড়ুয়া। সুমন বড়ুয়ার সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন যীশু বড়ুয়া, সুদল বড়ুয়া, সুমন বড়ুয়া প্রমুখ। আলোচনা শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
সন্দ্বীপ : সন্দ্বীপে রবিবার বর্ণিল সাজে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক বর্ষবরণ উদযাপিত হয়েছে। অনুষ্ঠানসূচির মধ্যে ছিল বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা, সংগীত ও নৃত্যানুষ্ঠান এবং সর্বস্তরের দর্শনার্থীর জন্য পান্তা ভাতের আয়োজন। এ ছাড়া উপজেলা পরিষদ মাঠে মৃৎশিল্প ও পিঠা মেলার পাশাপাশি ছিল বাংলা লোকজ ঐতিহ্য সঙ বা ঢাকের উপস্থাপন।


শোভাযাত্রা শেষে ইলিশ ভাজা না থাকলেও রুই ভাজা, আলুভাজা, পোড়া মরিচ ও পিঁয়াজের ঝাঁঝ সহ পান্থা ভাত খেয়ে সকলে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলেছেন।
সকাল ৮ টায় সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান মিতা ও ইউএনও নুরুল হুদার নেতৃত্বে সর্বস্তরের মানুষের উপস্থিতিতে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রাটি উপজেলা সদরের প্রধান সড়কটি প্রদক্ষিণ করে। সকাল থেকেই মৃৎশিল্প ও পিঠা মেলায় দর্শনার্থীদের ছিল প্রচুর ভিড়। পাশাপাশি ছিল উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীদের মনোমুগ্ধকর সংগীত ও নৃত্য পরিবেশনা। সবশেষে ছিল আকর্ষণীয় র‌্যাফেল ড্র।