‘পরিবেশের বিপর্যয় করে উন্নয়নে লাভ হবে না’

7

পরিবেশের বিপর্যয় করে আমাদের উন্নয়নে কোনো লাভ হবে না বলে মন্তব্য করেছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য রেজাউল করিম বাবলু। গত ২৯ জুন শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরাম খাঁ হলে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের (পবা) উদ্যোগে আয়োজিত ‘জাতীয় বাজেট: পরিবেশ ও উন্নয়ন বিতর্ক’ শীর্ষক সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
রেজাউল করিম বাবলু বলেন, বেঁচে থাকতে হলে উন্নয়ন ও পরিবেশের কল্যাণে আসতে হবে। পরিবেশের ভারসাম্য স্থায়িত্বের দিকে আমাদের খেয়াল রাখতে হবে। পরিবেশের বিপর্যয় করে আমাদের উন্নয়নের কোনো লাভ হবে না।
‘বাংলাদেশে অনেক বিজ্ঞানী আছে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে দেশি বিজ্ঞানীরা উদ্ভাবনের দিক দিয়ে একটু মাথা চাড?া দিয়ে উঠলেই বিদেশি ষড়যন্ত্রে তাদের থামিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এভাবেই আমাদের পরিবেশকে নষ্ট করার জন্য সক্রিয় হয়ে আছে বিদেশি চক্রগুলো।’
তিনি বলেন, ওই চক্রগুলো এমনভাবে কাজ করে যাচ্ছে, যাতে ধীরে ধীরে আমাদের পরিবেশ ধ্বংস হয়ে যায়। মাটি, পানি ও বায়ু- এ তিনটিই পরিবেশের প্রধান উপাদান। আমাদের পরিবেশের এ তিনটি উপাদানই দূষিত হচ্ছে। এ কারণেই আমাদের পরিবেশ প্রতিনিয়ত ধ্বংসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।
সংসদ সদস্য আরও বলেন, বাংলাদেশে যতগুলো মাফিয়া চক্র আছে, সেগুলোর মধ্যে পরিবেশ ধ্বংসকারী চক্রই বেশি শক্তিশালী। সারা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশ ও জাতি হিসেবে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে আমরা অগ্রসর হচ্ছি। কিন্তু এ উন্নয়নে কি লাভ হবে, যদি আমরা পরিবেশের ভারসাম্যই হারিয়ে ফেলি? ‘বর্তমানে আমাদের পরিবেশ ধ্বংস হচ্ছে। আমরা প্রতিনিয়তই পরিবেশ প্রতিকূলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। এতে পরিবেশের অবক্ষয় হচ্ছে। এখন আমরা যদি পরিবেশের দিকে সচেতন দৃষ্টি বাড়িয়ে না দেই, তাহলে ভবিষ্যত আশঙ্কাজনক।’
তিনি আরও বলেন, কীটনাশক ব্যবহারের ফলে ইতোমধ্যে আমাদের মাটির উর্বরতা হারিয়ে গেছে। ছোটবেলায় আষাঢ়-শ্রাবণ মাসে জমির ধারে অসংখ্য প্রাকৃতিক মাছ দেখতাম। কিন্তু এখন এগুলো দেখা যায় না। আমাদের উচিৎ কীটনাশক নির্ভরতা থেকে বেরিয়ে এসে প্রাকৃতিক উপায়ে ফসল উৎপাদন বাড়ানো।
পবা সভাপতি আবু নাসির খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শামসু জামান, অ্যাডভোকেট হাসান তারেক চৌধুরী ও প্রকৌশলী তোফায়েল আহমেদ প্রমুখ।