পটিয়ায় গ্রাম পুলিশকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে মারধরের অভিযোগ

পটিয়া প্রতিনিধি

15

পটিয়া থানার ভাটিখাইন ইউনিয়নে আব্দুল মাজেদ নামের এক গ্রাম পুলিশকে তার বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইউনিয়নের করল এলাকায় নিয়ে যাওয়ার পর লাঠি, হাতুড়ি ও লোহার রড় দিয়ে পেটানো হয়। ঘটনার লোকজন তাকে আব্দুল মাজেদকে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো ৬/৭ জনকে আসামি করে আব্দুল মাজেদ বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা করেন। গত বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ৪ জুলাই সকালে ভাটিখাইনের করল এলাকায় একদল দুঃস্কৃতকারী গ্রাম পুলিশ আব্দুল মাজেদকে তার বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। পরে তাকে লাঠি, হকিস্টিক ও রড দিয়ে পিটিয়ে ফেলে রেখে চলে যান। ঘটনার পর মাজেদের পরিবারের সদস্যরা তাঁকে উদ্ধার করে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। ওই ঘটনায় অভিযোগে আব্দুল মাজেদ বাদি হয়ে পটিয়া থানায় মামলা করেছেন।
মামলায় স্থানীয় কাজী ফারুক, লুৎফর রহমান, মামুনুর রশীদ, বাচুনি, ইউছুফ, রোকসানা, মোহাম্মদ হোসেনকে আসামি করা হয়। আব্দুল মাজেদ জানান, এলাকার একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে নানা অসামাজিক কর্মকান্ডসহ নানা অপরাধ চালিয়ে আসছে। তাদের বিরুদ্ধে কথা বলায় চক্রটি এলাকার প্রভাবশালী একজন ইয়াবা ব্যবসায়ীর নেতেৃত্বে আমাকে অপহরণ অমানাবকভাবে মারধর করে। পরে এলাকাবাসী তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়। হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, মাজেদের শরীরের কোথাও কেটে-ছিঁড়ে যায়নি। তবে আঘাতজনিত ব্যথা রয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নেয়ামত উল্লাহ বলেন, গ্রাম পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেস্টা চলছে। বিভিন্ন কারণ ছাড়াও গ্রাম পুলিশের সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধ ছিলো আসামিদের।