পটিয়ায় করোনা রোগী দাফন করেছে একেএমবির স্বেচ্ছাসেবী টিম

12

আর্ত মানবতার সেবায় নিবেদিত বহুমূখী সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান আঞ্জুমানে খুদ্দামুল মুসলেমীন বাংলাদেশের তত্ত্বাবধানে গত ১৪ জুলাই পটিয়া উপজেলাধীন মালিয়ারা গ্রামের করোনায় মৃত জানে আলমকে এম্বুলেন্স সেবাসহ গোসল, কাফন, দাফনকার্য অত্যন্ত সুচারুপে সম্পন্ন করা হয়। উল্লেখ্য, নগরীর পার্ক ভিউ হাসপাতাল থেকে একেএমবির এম্বুলেন্স যোগে মরহুমের গ্রামের বাড়ি পটিয়াস্থ মালিয়ারায় নামাজে জানাযার মাধ্যমে সার্বিক দাফন কার্য সম্পাদন করে একেএমবির প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবী টিম। জানাযাপূর্ব এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে একেএমবির চেয়ারম্যান আলহাজ জসিম উদ্দীন বলেন, করোনা আক্রান্তরা সর্বত্র অবহেলিত। এমনকি এরা সামাজিক ও ধর্মীয় মর্যাদা থেকেও উপেক্ষিত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। শুধু তাই নয়-রক্ত সম্পর্কীত স্বজনদের নিকট পর্যন্ত করোনা আক্রান্তরা তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের শিকার হচ্ছে। এমনিতর এক কঠিন পরিস্থিতিতে একেএমবি করোনা বিপর্যস্তদের পাশে নিরবচ্ছিন্ন সেবা আঞ্জাম দিয়ে আসছে। যেখান থেকেই ফোন আসুক না কেন দ্রুত গতিতে ছুটে যাচ্ছে একেএমবির স্বেচ্ছাসেবক টিম। ১৯৮৭ সাল থেকেই এ সংস্থা আর্ত মানবতার সেবায় নিরলস কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে। তাই সকল মানবিক মানুষকে একেএমবির এ কার্যক্রমের অংশীদার হওয়া নৈতিক ও ঈমানী দায়িত্ব। সপ্তাহের মধ্যে ২৪ ঘনটা একেএমবির সার্বিক সেবা পেতে নিম্নোক্ত নম্বরেযোগাযোগ করুন। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন একেএমবির এম্বুলেন্স ও অক্সিজেন সেবা প্রকল্পের সমন্বয়ক স ম হামেদ হোসাইন, বিভিন্ন প্রকল্প উপ কমিটির সদস্য আলহাজ এএম মঈনউদ্দীন চৌধুরী হালিম, মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন, মাওলানা নুরুল আলম, টিম লিডার হাসান ইমাম, গোলাম হাসানুজ্জামান, আবদুল্লাহ আল নোমান, ফারুক আজম, মোহাম্মদ রাসেল প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি