সার্কিট হাউসে কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ইসি কবিতা খানম

নির্বাচনে পক্ষপাতমূলক আচরণ করা যাবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক

22

নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উদ্দেশে নির্বাচন কমিশনার (ইসি) বেগম কবিতা খানম বলেছেন, ‘নির্বাচনী পরিবেশ ও প্রক্রিয়া সুষ্ঠু রাখার দায়িত্ব কর্মকর্তাদের। রাষ্ট্র আপনাদের ওপর যে দায়িত্ব দিয়েছেন, সেটি সৎভাবে পালন করবেন। কোনো প্রলোভন যেন আপনাদের স্পর্শ না করে। প্রার্থীরা শুধু প্রার্থী হিসেবেই থাকবেন। অন্যকোনো পরিচয়ে তারা যেন আপনাদের কাছে পরিচিত না হয়। তাহলে পক্ষপাতমূলক আচরণের সুযোগ থাকবে না।’
গতকাল সকালে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে আয়োজিত বিভাগীয় আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উদ্দেশে বেগম কবিতা খানম বলেন, নির্বাচন শুধু প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থীর জন্য নয়। ভোটারের নিরাপত্তা, ভোটাধিকার প্রয়োগসহ তফসিল ঘোষণার পর থেকে ফল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্ব। এজন্য কেউ যাতে অবৈধ সুবিধা গ্রহণ করতে না পারে সে ব্যাপারে নজর রাখতে হবে। প্রথম ধাপের নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। বাকি চার ধাপ যাতে সুষ্ঠু হয়, সেদিকে লক্ষ্য রেখে কাজ করতে হবে।
নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি সুষ্ঠুভাবে ভোটের লক্ষ্যে খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও বান্দরবানে নির্বাচনী দায়িত্বে সেনাবাহিনীকে রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কক্সবাজার সদর উপজেলায় ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট হবে। সেখানে বিজিবির পাশাপাশি সেনাবাহিনী ভোটগ্রহণের দায়িত্বে থাকবে।
অনিয়ম সহ্য করা হবে না জানিয়ে ইসি সচিব, প্রথম ধাপের নির্বাচনে ২৮টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। ভোটকেন্দ্রে কোনোধরনের ঝামেলা হয়নি। কেউ আহত কিংবা নিহতও হয়নি। অনিয়মের সঙ্গে জড়িত প্রিজাইডিং ও পোলিং কর্মকর্তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ইসি সুপ্তু ভোট চায়। তাই অনিয়মের সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনা হয়েছে। কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে ইসি শাস্তির আওতায় আনবে।
ভোটের সময় পর্যটন এলাকাগুলোতে যাতায়াতে নিরুৎসাহিত করা হবে জানিয়ে ইসি সচিব বলেন, নির্বাচনের দিন, আগে ও পরের দিন যাতে পর্যটকরা সেখানে না যান সে ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে। নির্বাচনকালীন রোহিঙ্গা ক্যাম্প সিলাগালা থাকবে। যাতে তাদের ব্যবহার করে কোনো অরাজকতা সৃষ্টির সুযোগ না থাকে।
অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার শংকর রঞ্জন সাহার সভাপতিত্বে সভায় স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক দীপক চক্রবর্ত্তী, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কুসুম দেওয়ানসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।