নগরীতে ভুয়া চিকিৎসক আটক

12

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চাকরি দেওয়ার নামে মানুষের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে রুমা আকতার (২১) নামে এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় নগরীর নিউমার্কেট মোড় থেকে তাকে আটক করা হয়।
আটক রুমা আকতার ভোলা জেলার লালমোহন থানার গজায়রা এলাকার মো. রফিকের মেয়ে। বর্তমানে কর্ণফুলী থানার বোটবাজার এলাকার আব্বাস কলোনিতে বসবাস করছিলেন তিনি। খবর বাংলানিউজের
রুমা আকতার নিজেকে চমেক হাসপাতালের চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করছেন বলে কোতোয়ালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সজল দাশ জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, আটক রুমা আকতার নিজেকে চিকিৎসক দাবি করে বিভিন্ন সময় প্রতারণা করে আসছিলেন। তার কাছ থেকে কয়েকটি অ্যাপ্রোন, চিকিৎসার সরঞ্জাম ও চাকরির ভুয়া নিয়োগপত্র জব্দ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে এ ঘটনায় কোতোয়ালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, রুমা আকতার স¤প্রতি চাকরি দেওয়ার নামে আবিদা বেগমসহ (৩৪) কয়েকজন নারীর কাছ থেকে টাকা আদায় করে। কিন্তু টাকা নিয়ে রুমা গা ঢাকা দেয়। পরে আবিদা বেগম বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়।
গতকাল সোমবার দুপুর দুইটার দিকে আবিদা বেগমের ভাগ্নে ফয়সাল বিন মান্নান রুমা আকতারকে ফোন করে নিউ মার্কেট এলাকায় আসতে বলেন। পরবর্তীতে সন্ধ্যায় রুমা আকতার আসলে অন্য চাকরি প্রত্যাশীরা সেখানে উপস্থিত হন। বিষয়টি বুঝতে পেরে রুমা পালানোর চেষ্টা করেন। এসময় পুলিশ রুমা আকতারকে আটক করে।
কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, চমেক হাসপাতালে নার্সিং পদে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে রুমা আকতার ২০ থেকে ৩০ জন আগ্রহীর কাছ থেকে টাকা আদায় করেছেন।
ওসি বলেন, এক ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি প্রতারণা কথা স্বীকার করেছেন। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
উল্লেখ্য ২০১৮ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি চমেক হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডের লেবার রুম থেকে ফারজানা আকতার (৩৬) ও মো. রাজু (১৯) নামে দুই ভুয়া চিকিৎসককে আটক করে পুলিশ। পরবর্তীতে আটক দু’জন বাচ্চা চুরির জন্য সেখানে গিয়েছিল বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করে।