দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ের অভিযোগ সীতাকুন্ডে গাড়ি সংকট

জাহেদুল আনোয়ার চৌধুরী, সীতাকুন্ড

8

ঈদের ছুটি শেষ, বাড়ি থেকে বাসায় যাব, সোমবার অফিস করার কথা, কিন্তু দীর্ঘ এক ঘন্টা সড়কে দাঁড়িয়ে থেকেও একটি গাড়ির দেখা নাই। কেমনে যাবো, কিভাবে যাবো আল্লাহ জানে। এসব কথাগুলো বললেন সীতাকুন্ড পৌরসদর এয়াকুব নগর এলাকার বেসরকারি চাকুরিজীবি জাফর আহাম্মেদ। একইভাবে বারৈয়াঢালা ইউনিয়নে চাকুরিজীবি ফারুক হোসেন জানান, মহাসড়কে এসে এক ঘন্টা পর একটি গাড়ি যাওয়ার জন্য পেলাম। কিন্তু গাড়ি ভাড়া সব সময়ের থেকে দ্বিগুণ। কি আর করা শহরে তো যেতে হবে। পরিবার-পরিজন নিয়ে যারা যাচ্ছে তাদের ভোগান্তি আরো বেশি বলেও তিনি জানান। এ সময় সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের কাজ কি। উনারা তো তদারকি করবেন। তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মিল্টন রায় জানান, আমি সকাল থেকে জেলে পাড়া বিষয় নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম, আর এ বিষয় কেউ বলেও নাই, তারপর আমি আগামি কাল থেকে কেউ যদি গাড়ি সংকট দেখিয়ে বেশি ভাড়া আদায় করার চেষ্টা করে আমরা ভ্রাম্যামান আদালতের মাধ্যামে যতাযত ব্যবস্থা নিব। সরেজমিনে গিয়ে সীতাকুণন্ড পৌরসদর বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায়, শত যাত্রী ঈদ শেষ করে গত সোমবার অফিস করার জন্য মহাসড়কে দাঁড়িয়ে আছে ঘন্টার পর ঘন্টা, কিন্তু পরিবহন শ্রমিকরা গাড়ি সংকট দেখিয়ে দ্বিগুণ থেকেও বেশি ভাড়া দাবি করছে এবং গাড়িতে উঠার আগে ভাড়া আদায় করে ফেলছে গাড়ির শ্রমিকরা।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ৮নং মিনিবাস মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. খুরশেদ আলম জানান, যেহেতু ঈদ উপলক্ষে কোন বাস ও সেইফ লাইন মালিক চালক থেকে কোন রকম বাড়তি ইনকাম নিচ্ছে না, সেহেতু গাড়ি চালক ও সহকারি কোন অবস্থাতেই যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া নেওয়া উচিত না। আমি ইতোমধ্যে হাইওয়ে পুলিশকে বাড়তি ভাড়া আদায়কারি গাড়ি চালকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। তারপরও কোন চালক যদি বাড়তি ভাড়া আদায় করে থাকে, তাহলে সুনিদিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিকে চালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।