দোকান কর্মচারী রাসেল হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ

25

রেয়াজউদ্দিন বাজার দোকান কর্মচারী রমজান আলী রাসেল হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশে মহানগর জাতীয় শ্রমিকলীগ নেতা আবুল হোসেন আবু বলেছেন, রেয়াজউদ্দিন বাজারে একটি অবৈধ ও অনৈতিক কারবারীদের সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে এবং এই সিন্ডিকেট সাধারণ দোকান কর্মচারী ও প্রকৃত দোকান মালিক এবং ব্যবসায়ীদের জিম্মি করে সাধারণ মানুষের হয়রানি করছে। এই সিন্ডিকেটের সক্রিয় মাফিয়া কথিত দোকান মালিক পরিকল্পিতভাবে নিরীহ দোকান কর্মচারী রমজান আলী রাসেলকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। রাসেলের অপরাধ ছিল, সে কথিত দোকান মালিকের অবৈধ অপকর্ম এবং মাদক কারবারের বিষয়গুলো জেনে ফেলেছিল এবং এর প্রতিবাদও করেছিল। তাই সামান্য চুরির অপবাদ দিয়ে পথের কাটা সরিয়ে ফেলতে এই হত্যাকাÐ ঘটানো হয়েছে।
রেয়াজউদ্দিন বাজার থেকে অবৈধ সিন্ডিকেট ও মাদক কারবারীদের চিরতরে উৎখাত করার জন্য প্রসাশনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি এবং রাসেলের খুনীকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া না হলে অচিরেই কঠিন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। গতকাল রাত ১০টায় রেয়াজউদ্দিন বাজার দোকান কর্মচারী সমিতির উদ্যোগে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
রেয়াজউদ্দিন বাজার দোকান কর্মচারী সমিতির সভাপতি এস এম নুরুল আব্বাসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম এ জিন্নাহর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় আরো বক্তব্য দেন শ্রমিক নেতা ছাবের আহমদ, সমীরুল ইসলাম তুহিন, দোকান কর্মচারী সমিতির নেতা শরীফুল ইসলাম শরিফ, মো. বাচ্চু, মুকুল হোসেন, জামাল উদ্দিন, মো. দিদার, বশিরুল ইসলাম, নাজিমুদ্দিন শিমুল, সাহাবুদ্দিন, মো. ফারুক, মহিউদ্দিন, মো. রাশেদ, মো. জাবেদ, মো. জসিম, মো. রাকিব, মো. মিজান ও নিহত রাসেলের পিতা আফাছ উদ্দিন প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি