নগরীর বড়পোল মোড়

দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের উদ্বোধন আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

48

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী স্মরণে দেশের সর্ববৃহৎ ভাস্কর্য স্থাপন করছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। আজ বুধবার সকাল ১১টায় ভাস্কর্যটি উদ্বোধন করবেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। চসিক জনসংযোগ শাখা সূত্রে জানা গেছে, ‘বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য’ স্থাপিত হচ্ছে নগরের হালিশহরস্থ বড়পোল মোড়ে। মুজিববর্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নতুন প্রজন্মের সঙ্গে পরিচিত ও স্মরণীয় করে রাখতে সিটি মেয়রের উদ্যোগে ভাস্কর্যটি স্থাপিত হচ্ছে। সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের দিক-নির্দেশনায় চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় চারুকলা ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম প্রায় ছয় মাস ধরে বঙ্গবন্ধুর এ ভাস্কর্যটি নির্মাণ করেন। এ ভাস্কর্য নির্মাণকাজে তাকে সহযোগিতা করেন চবির আরও ৮ শিল্পী। চবির এই শিক্ষক নিজেই ভাস্কর্যের নকশা প্রণয়ন করেন। ভাস্কর্য তৈরিতে ব্যয় হচ্ছে ৪০ লাখ টাকা। ভাস্কর্যের চারপাশে বেদি, সৌন্দর্যবর্ধন ও আনুষঙ্গিক কাজের জন্য ৪৭ লাখ ৭০ হাজার টাকাসহ মোট ব্যয় হচ্ছে ৮৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা।
চসিক সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে মাটি দিয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের মূল কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন টাইগারপাস চসিক এলাকা থেকে সেটি নিয়ে যাওয়া হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান (সাবেক পোর্ট কানেকটিং রোড) রোডের বড়পুল চত্বরে। সেখানে স্থায়ীভাবে বসানো হবে এই ভাস্কর্যটি। বঙ্গবন্ধুর এই ভাস্কর্য আকর্ষণীয় করতে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে চসিক। বড়পুল এলাকায় নিয়ে গিয়ে ভাস্কর্যটি ছাঁচের মাধ্যমে ঢালাই দিয়ে স্থায়ী ভাস্কর্যে রূপান্তর করা হবে। বেইজসহ ভাস্কর্যটির উচ্চতা হবে ২৭ ফুট ৬ ইঞ্চি। শুধু ভাস্কর্যের উচ্চতা হবে সাড়ে ২২ ফুট। অবকাঠামো তৈরির কাজের সঙ্গে ভাস্কর্য চত্বরটি ফুলের গাছ, বিভিন্ন উদ্ভিদের সমন্বয়ে সজ্জিত করা হয়েছে।
চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, বঙ্গবন্ধুর ত্যাগের ইতিহাস, ৭ মার্চের ভাষণ, স্বাধীনতাযুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর অবদান নতুন প্রজন্মের নাগরিকদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে স্থাপন করা হচ্ছে এ ভাস্কর্য। বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ অভিন্ন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে চসিক ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। তারই প্রেক্ষাপটে এই ভাস্কর্য বসানো হচ্ছে। মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এটি চট্টগ্রামবাসীর পক্ষ থেকে উপহার দিতে চাই।