‘দুস্থ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো বিত্তবানদের নৈতিক দায়িত্ব’

49

গরিব মানুষকে ফ্রি চিকিৎসাসেবা প্রদান এবং শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণের মধ্যদিয়ে ওলিয়ে কামেল আল্লামা শাহসুফি ছালেহ জহুর ওয়াজেদীর (র.) দুইদিনব্যাপী তৃতীয় বার্ষিক ওরশ শরিফ গত ১৪ জানুয়ারি বায়েজিদ ওয়াজেদিয়ায় শুরু হয়েছে। আল্লামা ছালেহ জহুর ওয়াজেদি (র.) ফাউন্ডেশনের আয়োজনে ওরশ শরিফের প্রথম দিনের কর্মসূচিতে বিভিন্ন ধরনের রোগীদের ফ্রি চিকিৎসা সেবা দেওয়ার পাশাপাশি বিনামূল্যে ওষুধও বিতরণ করা হয়। রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা চিকিৎসা সেবা আয়োজনে সহযোগিতা করে। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, মহান আল্লাহ পাকের ওলীদের জীবন মিশনই হচ্ছে জনসেবা ও মানবকল্যাণে আত্মোৎসর্গীত হওয়া। আল্লাহর হক ইবাদত বন্দেগি যেমন নিষ্ঠার সঙ্গে আদায় করতে হবে, তেমনি মানুষের অধিকার প্রদানেও যতœবান হওয়া উচিত। ওলী-বুজুর্গ সাধকদের দরবারগুলো মানবসেবার একেকটি পাদপীঠ।
ওলীদের জীবনদর্শন থেকে শিক্ষা নিয়ে অসহায় দুস্থ বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ানো বিত্তবানদের ওপর ধর্মীয় ও নৈতিক দায়িত্ব। আল্লামা ছালেহ জহুর ওয়াজেদী (রহ.) আজীবন মানুষের সেবা ও হাজীদের খেদমতে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন বলে বক্তারা অভিমত ব্যক্ত করেন। শাহ্ আমানত হজ্ব কাফেলার পরিচালক আলহাজ্ব মুহাম্মদ সাইফুদ্দিন জহুরের সভাপতিত্বে ফ্রি চিকিৎসাসেবা ক্যাম্প অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএমএ কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা প্রেসিডেন্ট ডা. শেখ শফিউল আজম। তিনি বলেন, আল্লামা ওয়াজেদীর (দ.) দরবার মানবসেবার ক্ষেত্রে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এ ধরনের ওলী মনীষীগণ মানবসেবার পথে আমাদের প্রেরণা ও উজ্জীবনের উৎস। তাঁরাই আমাদের জাগতিক কল্যাণ ও পরকালীন মুক্তির দিশারী। আল্লামা ওয়াজেদীর (রহ.) অসাধারণ কর্মর্কীতি আমাদের চিরদিন প্রেরণা জোগাবে। ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প আয়োজনে সহযোগিতায় ছিল চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল, আল নুর চক্ষু হাসপাতাল, বৃহত্তর চট্টগ্রাম ডেন্টাল এসোসিয়েশন, সিটিজি ব্লাড ব্যাংক ও প্রাইমারী চিকিৎসক সোসাইটি। সকালে চিকিৎসা ক্যাম্প উদ্বোধন করেন পাঁচলাইশ ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ওরশ কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কফিল উদ্দিন খান। বিকালে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কাফেলার পরিচালক আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহিউদ্দিন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নগর যুবলীগের আহব্বায়ক মহিউদ্দীন বাচ্চু। উভয় অধিবেশনে অতিথি ও আলোচক ছিলেন পীরে ত্বরিকত আল্লামা খায়রুল বশর হক্কানী, শাহ আমানত হজ্ব কাফেলার চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ মুহাম্মদ ইয়াছিন, চমেক হাসপাতালের সাবেক উপ-পরিচালক ডা. মোহাম্মদ আব্দুল করিম, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হসপিটালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মো. মজিবুল হক, ডা. মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম, ডা. আনোয়ারুল আজিম, অধ্যাপক ড. মুহম্মদ মাসুম চৌধুরী, রাজনীতিবিদ তারেক হায়দার বাবু, কাফেলার পরিচালক আলহাজ্ব মুহাম্মদ নঈম উদ্দীন জহুর, মো. কফিল উদ্দিন, আলহাজ্ব এ.টিএম শাহজালাল, মাওলানা লিয়াকত আলী নোমানী, মাওলানা শিব্বির আহমদ ওসমানী, মাওলানা কাজী খালেদুর রহমান হাশেমী, ডা. রিয়াদ মাহমুদ, মাওলানা সেকান্দর হোসেন আলকাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ আলী, আবুল হাশেম খোকন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন কাফেলার সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মো. আব্দুল মান্নান। বিজ্ঞপ্তি