দীঘিনালায় অস্ত্রসহ ইউপিডিএফ এর ২ সদস্য আটক

দীঘিনালা প্রতিনিধি

19

খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার শুকনাছড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুই চাঁদাবাজকে আটক করেছে বাঘাইহাট জোন সেনাবাহিনী। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে চাঁদা আদায়কালে হাতেনাতে তাদের আটক করা হয়। তারা দু’জনই ইউপিডিএফ (ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট) প্রসীত গ্রæপের সক্রিয় সদস্য। আটককৃতরা হলেন উপজেলার ক্ষেত্রপুর গ্রামের রাম্মী চাকমার ছেলে শুদ্ধজয় চাকমা (৪৫) এবং উপজেলার চোংড়াছড়ি এলাকার সুধাপ্রিয় চাকমার ছেলে রিকেল চাকমা (২৭)। পরে তাদের দীঘিনালা থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে সেনাবাহিনী।
জানা গেছে, উপজেলার শুকনাছড়ি এলাকায় ইউপিডিএফ-প্রসীত গ্রুপের সক্রিয় সদস্যরা দীর্ঘদিন যাবত চাঁদা আদায় করছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার বাঘাইহাট সেনা জোনের স্টাফ অফিসার মেজর আবুল বাশারের নেতৃত্বে শুকনাছড়ি এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। ফলে সেনাবাহিনী চার রাউন্ড গুলি করে। এতে শুদ্ধজয় চাকমা বাম পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। পরে উপজেলার ক্ষেত্রপুর গ্রামের রাম্মী চাকমার ছেলে শুদ্ধজয় চাকমা (৪৫) এবং উপজেলার চোংড়াছড়ি এলাকার সুধাপ্রিয় চাকমার ছেলে রিকেল চাকমা (২৭) কে আটক করা হয়।
এসময় তাদের কাছ থেকে আমেরিকার তৈরি ১টি পিস্তলসহ ৫ রাউন্ড অ্যামুনিশন এবং ১ রাউন্ড অ্যামুনিশনসহ ১টি এলজি, ১২ টি চাঁদার রশিদ বই, আদায়কৃত চাঁদার ২৬ হাজার ৪১০ টাকা পাওয়া যায়।
এবিষয়ে বাঘাইহাট জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল হুমায়ুন কবির জানান, ইউপিডিএফ’র কালেক্টররা শুকনাছড়ি এলাকায় চাঁদা আদায় করছে- এমন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে দু’জনকে আটক করা হয়। সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে একজন কালেক্টর পালানোর সময় বাম পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। আটকৃতদের দীঘিনালা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
দীঘিনালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) উত্তম চন্দ্র দেব জানান, অভিযানে অস্ত্রসহ আটককৃদের থানায় হস্তান্তরের পর তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।