থেঁতলে দেয়া গেরো

আবু তাহের মুহাম্মদ

5

আঙুলের গেরো সব খুলে দিয়েছি
উড়িয়ে দিয়েছি শুন্যে
যে আঙুল পুড়ে পুড়ে গেছে
যুগের পরে যুগে
হেমন্তের খেপা বন্যে।

আঙুলের গেরো সব আগুনে শেকেছি
কারাতে কুংফুতে নয় বিজলিঘাতে
ব্যাকুল বৃক্ষের হেলানে
কাশফুলের পাঁপড়ি ছড়ানো অস্থির রাতে।

আঙুলের গেরোয় যে নামতা ধরেছি ভুল
শিস দেয়া পাখির মতো তেষ্টায়
যে পথে হেঁটেছি চিরটা কাল
বুক পকেটে জমানো বেসুরো গানগুলি
লুকোনোর চেষ্টায়
রেস্তোঁরা বাতিঘরে হানডিতে হালদিতে
তোমাকে ছোঁয়ার শেষটায়।

আঙুলের গেরো সব থেঁতলে দিয়েছি
দেখা অদেখার কাব্য ঝেড়ে
গুমোট সন্ধেরা বলেছে
গোলাপ ওড়ানো দিনে
বুকের মরুতটে হু হু বাতাস
আরো আরো যায় বেড়ে।

বিবর্ণ অনুভূতি
আরিফা সিদ্দিকা

উষ্ণতায় বিবর্ণ অনুভূতি ধূসর
পাÐুলিপি হয়ে নির্ভরতা খুঁজি
তোমার এই প্রান্তিক শহরে
চঞ্চল হই ঘূর্ণায়মান জীবনে
আত্মপীড়নের অস্থিত্ব বুঝে
নির্বাসনের প্রতি পদক্ষেপে
স্নিগ্ধ সাগরে গাঙচিল ওড়ে
জাহাজের পিছু পিছু
দূর দিগন্তে অচেনা ঝাউবন
নিবিড় সত্য বুকে নিয়ে
প্রেম ভাসে উজান ভাটির টানে
নোনা জলের স্রোতে তোমায়
অনুবাদ করি মনের গহীনে
কখনও সমুদ্র বিলাস কখনও
সাধ আহলাদ মগ্ন-চৈতন্যে
ব্যপ্তিতে উপলব্ধিতে
স্মৃতির আল্পনায় মুগ্ধতা
ভালোলাগার বিমূর্ত অস্তরাগ
আঁধারের রূপ সে ও আমি দেখি
অপূর্ব বিন্যাসে প্রণয় সূরের
মূর্চ্ছনা অনেক পাওয়া না-
পাওয়ার বেদনা স্বপ্নীল সপ্তসূরে
বাজে ঐ নীল নীল ঢেউ দূরের
গাঢ় সবুজ বন অপার্থিব সুখের
পায়রা হয়ে ওঠে নিঃসীম
নিলীমায় ….