থিসারার অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ঢাকাকে হারালো কুমিল্লা

পূর্বদেশ ক্রীড়া ডেস্ক

14

তামিম ইকবাল, শামসুর রহমান গড়ে দিলেন ভিত। রানের গতিতে দম দিলেন থিসারা পেরেরা। পরে বোলিংয়েও রাখলেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান। শ্রীলঙ্কার এই অলরাউন্ডারের নৈপুণ্যে ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারালো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।
বিপিএলে গতকাল দ্বিতীয় ম্যাচে ৭ রানে জিতেছে কুমিল্লা। ১৫৩ রান তাড়ায় ৯ উইকেটে ১৪৬ রান করে ঢাকা।
মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি কুমিল্লার। এনামুল হককে দ্রæত ফেরান আন্দ্রে রাসেল। ক্যারিবিয়ান এই অলরাউন্ডারের বলে জীবন পাওয়া ইমরুল কায়েস যেতে পারেননি বেশি দূর। কুমিল্লা অধিনায়ককে বোল্ড করে বিদায় করেন রুবেল হোসেন।
তৃতীয় উইকেটে তামিম ইকবালের সঙ্গে ৫১ রানের জুটিতে প্রাথমিক প্রতিরোধ গড়েন শামসুর রহমান। সাকিব আল হাসানকে ওড়ানোর চেষ্টায় সীমানায় ক্যাচ দিয়ে তামিম ফিরলে ভাঙে ৭ ওভার স্থায়ী জুটি। বাহাতি এই ওপেনার ২৯ বলে করেন ৩৪ রান।
শহিদ আফ্রিদিকে নিয়ে এগিয়ে নিচ্ছিলেন শামসুর। তিন বলের মধ্যে তাদের বিদায় করে কুমিল্লাকে চাপে ফেলে দেন সাকিব। ৩৫ বলে তিন চার আর এক ছক্কায় ৪৮ রান করা শামসুরকে ফিরিয়ে প্রথম বোলার হিসেবে বিপিএলে একশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন ঢাকা অধিনায়ক।
রাসেলের বলে রনি তালুকদারের হাতে জীবন পাওয়া লিয়াম ডসন যেতে পারেননি বেশি দূর। সেই ওভারেই রনিকে ক্যাচ দেন ইংলিশ অলরাউন্ডার। ১২ বলে তিন ছক্কায় ২৬ রানের ইনিংসে দলকে দেড়শ রানে নিয়ে যান থিসারা।
দারুণ বোলিংয়ে ২৪ রানে ৩ উইকেট নেন সাকিব। দুটি করে উইকেট নেন দুই পেসার রুবেল ও রাসেল।
রান তাড়ায় শুরুটা ভালো হয়নি ঢাকার। দ্রুত ফিরেন টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান। দুই ছক্কা হাঁকিয়ে বিদায় নেন আফগান মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান দারবিশ রাসুলিও।
রানের জন্য সংগ্রাম করা ঢাকা ম্যাচে ফিরে রাসেলের বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে। পঞ্চম উইকেটে ক্যারিবিয়ান এই অলরাউন্ডার সাকিবের সঙ্গে গড়েন ৬২ রানের জুটি। থিসারাকে ছক্কা হাঁকানোর চেষ্টায় থামেন রাসেল। ২৪ বলে খেলা তার ৪৬ রানের ঝড়ো ইনিংস গড়া ৫ ছক্কা ও ২ চারে।
এনামুলের অবিশ্বাস্য ব্যর্থতায় রান আউট হতে হতে বেঁচে যাওয়া সাকিব পারেননি সুযোগ কাজে লাগাতে। আফ্রিদির ফুলটসে সীমানায় সহজ ক্যাচ দিয়ে ফিরেন ঢাকা অধিনায়ক।
শুভাগত হোম ও নুরুল হাসান সোহানকে দ্রুত বিদায় করে ম্যাচে কুমিল্লার নিয়ন্ত্রণ দৃঢ় করেন থিসারা। শেষের দিকে মোহাম্মদ নাঈম ও রুবেলের ব্যাটে পরাজয়ের ব্যবধান কমায় ঢাকা।
১৪ রানে ৩ উইকেট নেন থিসারা। ব্যাটে-বলে নিজেকে মেলে ধরে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন লঙ্কান এই অলরাউন্ডার। আট ম্যাচে তৃতীয় হারের স্বাদ পেলো ঢাকা। সমান ম্যাচে পঞ্চম জয় পেলো কুমিল্লা।ফল: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৭ রানে জয়ী, ম্যান অব দ্য ম্যাচ: থিসারা পেরেরা।