সিরিজ বোমা হামলা

তদন্তে সন্দেহভাজন লঙ্কান প্রকৌশলী

11

শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডেতে গির্জা ও হোটেলে চালানো সিরিজ বোমা হামলার তদন্ত এগুচ্ছে এক সন্দেহভাজন সফটওয়্যার প্রকৌশলীকে কেন্দ্র করে। জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিত স্টেট (আইএস)-এর সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আদিল আমিজ নামের লঙ্কান এই প্রকৌশলীর ওপর গত তিন বছর ধরেই নজর রাখছিল ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলো।
লঙ্কান গোয়েন্দা সংস্থাগুলো জানিয়েছে, হামলার কয়েকদিন পরই আদিলকে গ্রেফতার করা হলেও এতোদিন তা গোপন রাখা হয়েছে। ভারত ও শ্রীলঙ্কার গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ধারণা, হামলাকারীদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষায় সহযোগিতা করত আদিল।
২১ এপ্রিল খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ইস্টার সানডে উদযাপনকালে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো ও তার আশপাশের তিনটি গির্জা এবং তিনটি হোটেলসহ আটটি স্থানে সিরিজ বোমা হামলায় অন্তত ২৫৩ জন নিহত হয়।

হামলার দায় স্বীকার করে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। ন্যাশনাল তাওহিদ জামাত বা এনটিজে নামে পরিচিত শ্রীলঙ্কার স্থানীয় উগ্রবাদী গোষ্ঠীর শীর্ষ নেতা জাহরান হাশিম মোহাম্মদকে হামলার মূল হোতা হিসেবে সন্দেহ করা হয়। আইএস-এর পক্ষ থেকেও দাবি করা হয়েছে,বাগদাদির প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে হাশিমের পরিকল্পনা মাফিক ওই হামলা হয়েছে।
শ্রীলঙ্কার গোয়েন্দা সংস্থার চারটি সূত্র জানায়, আদিল আমিজ নামে ওই প্রকৌশলী হামলা চালানো দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংযোগ স্থাপন করেছেন বলে ধারণা তাদের। ইতোমধ্যে আদিলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কিন্তু এতদিন সেই খবর প্রকাশ করা হয়নি। তবে লঙ্কান পুলিশের প্রধান মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকারা বলেন, হামলার চারদিন পরই পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে আদিলকে। তবে বিস্তারিত কিছু জানাননি তিনি।
ভারতের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এনআইএ) ও গুজরাটের দুই পুলিশ সদস্য জানান, তারা শ্রীলঙ্কা কর্তৃপক্ষকে তথ্য সরবরাহ করছেন। এই নজরদারির বিষয়টি শ্রীলঙ্কা সরকারকে ভারত কখন জানিয়েছে সেই বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারেনি রয়টার্স। ওই দুই কর্মকর্তারাও বলতে রাজি হননি যে ভারতে তদন্ত শেষ হওয়ার পরও আদিলের ওপর নজর রাখা হয়েছে কি না।