টি-১০ বাংলা টাইগার্সের হেড কোচ আফতাব

4

আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম উল হক যদি হন ‘অলস সৌন্দর্য’, তাহলে বাংলাদেশের ক্রিকেটে সেই তকমাটা অবধারিতভাবে গায়ে পড়বে আফতাব আহমেদের। অসাধারণ ব্যাটিং প্রতিভা, অনন্য ব্যাটিংশৈলির অধিকারী আফতাব ছিলেন ন্যাচারাল ট্যালেন্ট।
কিন্তু তার সমসাময়িক অনেকের আগেই শেষ হয়েছে এ অসাধারণ ক্রিকেট প্রতিভার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার। নিজের সীমাবদ্ধতা জেনে বুঝে ত্রিশ পার হতেই খেলোয়াড়ি জীবনে ইতি টেনে শুরু করেছেন কোচিং অধ্যায়। সবশেষ প্রিমিয়ার লিগে ছিলেন লিজেন্ডস অব রুপগঞ্জের হেড কোচ। তার অধীনে অল্পের জন্য শিরোপা পায়নি রুপগঞ্জ, লিগের শেষ ম্যাচ পর্যন্ত ছিলো শিরোপার দৌড়ে। তার আগে দুই মৌসুম ছিলেন মোহামেডান লিমিটেডের সহকারী কোচ।
এবার আগামী ১০ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাওয়া জাতীয় ক্রিকেট লিগে নিজ বিভাগের দল চট্টগ্রামের হেড কোচের দায়িত্বও রয়েছে আফতাবের কাঁধে। তবে শুধু দেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকছে না আফতাবের কোচিং অধ্যায়। দেশের সীমানা ছাড়িয়ে দুবাইয়েও কোচিং করাতে যাবেন তিনি।
দুবাইয়ে এরই মধ্যে ১০ ওভারের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট টি-টেন লিগের তৃতীয় আসরে বাংলা টাইগার্স নামে থাকছে বাংলাদেশেরও একটি দল। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক সিরাজউদ্দিন আলমগীরও এ দলের যৌথ মালিকানায় থাকছেন। সে দলের হেড কোচের দায়িত্ব পালন করবেন আফতাব আহমেদ। এর মাধ্যমে আফতাবের কোচিং ক্যারিয়ারের ডানায় আরও একটি পালক যুক্ত হলো।
আগামী ১৬ অক্টোবর হবে টি-টেন লিগের প্লেয়ার্স ড্রাফট। যেখানে প্রতি দল ১৪ জন ক্রিকেটারকে চুক্তিবদ্ধ করতে পারবে। এর মধ্যে দুইজন আরব আমিরাতের ক্রিকেটার রাখা বাধ্যতামূলক। এছাড়া এ ও বি ক্যাটাগরি থেকে ৩ জন, সি ও ইমার্জিং ক্যাটাগরি থেকে ২ জন এবং অ্যাসোসিয়েট ক্যাটাগরি থেকে ১ জন করে খেলোয়াড় রাখতে হবে। ড্রাফটে থাকা যেকোনো দেশের, যেকোনো খেলোয়াড়কে দলে ভেড়ানো যাবে। ফলে বাংলা টাইগার্সের মাধ্যমে বাংলাদেশ ক্রিকেটের তরুণ প্রতিভাদের এ টুর্নামেন্টে খেলার সুযোগ হতে পারে। আগামী ২৪ নভেম্বর দুবাইয়ে হবে ৬ দলের এ টুর্নামেন্ট।