১৪ সেলাই নিয়েই মাঠে মাশরাফি

টিকে আছে চট্টগ্রাম ঢাকার বিদায়

পূর্বদেশ স্পোর্টস ডেস্ক

গত ১১ জানুয়ারি খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে রুশোর ক্যাচ নিতে গিয়ে হাতের তালুতে মারাত্মক চোট পান ঢাকা প্লাটুন অধিনায়ক। তারপর রক্তাক্ত হাত নিয়ে তাকে মাঠ ছাড়তে হয়। হাতে ১৪টি সেলাই নিতে হয়েছে তাকে। গুরুতর এই চোট নিয়েও গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে চট্টগ্রামের বিপক্ষে দলকে নেতৃত্ব দিতে আগ্রহ দেখিয়েছিলেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’। অবেশেষে হাতে ব্যান্ডেজ নিয়েই টস করতে দেখা গেছে মাশরাফিকে।
বাঁ হাতে ১৪টি সেলাই নিয়ে মাশরাফি বিন মর্তুজা খেললেন ঠিকই, কিন্তু ঢাকা প্লাটুনকে জয় এনে দিতে পারলেন না। বিপিএলের এলিমিনেটর ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স জিতেছে সহজে, সাত উইকেটে। ঢাকাকে বিদায় করা চট্টগ্রাম কাল বুধবার খেলবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে। সেখানে তাদের প্রতিপক্ষ প্রথম কোয়ালিফায়ারে পরাজিত দল রাজশাহী রয়্যালসের সাথে।
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ঢাকা উইকেট হারিয়েছে শুরু থেকে। তামিম ইকবাল (৩), এনামুল হক (০), লুইস রিস (০), মেহেদী হাসান (৭), জাকের আলী (০) আর আসিফ আলীর (৫) ব্যর্থতায় ৬০ রানে তারা হারিয়ে ফেলেছে ৭ উইকেট।স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে লড়াই করলেও মুমিনুল হক (৩১) দলকে বিপদমুক্ত করতে পারেননি। সে কাজটি করেছেন শাদাব খান আর থিসারা পেরেরা। ৩০ বলে ৪৪ রানের জুটি গড়ে ঢাকার ড্রেসিংরুমে স্বস্তি ফিরিয়ে এনেছেন এই দুজন। ১৩ বলে ২৫ রান করে পেরেরা ফিরে আসার পর একাই খেলেছেন শাদাব। মাশরাফির অবদানও কম নয়। আহত হাতে দুই বল ঠেকিয়ে অধিনায়ক যেন অভয় দিয়েছেন সতীর্থকে। শাদাবও খেলেছেন নির্ভয়ে। ৪১ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় অপরাজিত ছিলেন ৬৪ রানে। তাই ঢাকা পেয়েছে সম্মানজনক স্কোর। ৩ উইকেট নিয়েছেন রায়াড এমরিট, দুটি করে নিয়েছেন রুবেল হোসেন ও নাসুম আহমেদ।
সম্মানজনক হলেও ১৪৪ টি-টোয়েন্টিতে বড় স্কোর নয়। এই পুঁজি নিয়ে ঢাকা লড়াই করতে পারেনি একদমই। ক্রিস গেইল (৩৮), জিয়াউর রহমান (২৫) আর ইমরুল কায়েসকে (৩২) হারিয়ে ১৪ বল আগেই লক্ষ্যে পৌঁছে গেছে চট্টগ্রাম। ফাইন লেগে মাশরাফির এক হাতে নেওয়া গেইলের ক্যাচই যা একটু আনন্দ দিতে পেরেছে ঢাকার ভক্তদের। শাদাবকে টানা দুই ছক্কা মেরে ম্যাচ শেষ করে দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। মাত্র ১৪ বলে ৩৪ রানে অপরাজিত ছিলেন চট্টগ্রামের অধিনায়ক।