টাইব্রেকারে জিতে জেদ্দায় রিয়ালের শিরোপা উৎসব

পূর্বদেশ স্পোর্টস ডেস্ক

দুর্দান্ত এক ফাইনাল শেষে হাসি ফুটলো রিয়াল মাদ্রিদের সমর্থকদের মুখেই। যদিও নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময় পর্যন্ত হাড্ডাহাড্ডি লড়াই উপহার দিয়েছিল অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। কিন্তু টাইব্রেকারে গিয়ে দিয়েগো সিমিওনের মুখের সব হাসি উবে গেছে। আর দ্বিতীয় মেয়াদে রিয়ালের কোচের দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম শিরোপা জয়ের স্বাদ নিয়ে স্পেনে ফিরছেন জিনেদিন জিদান। সৌদি আরবের জেদ্দার কিং আবদুল্লাহ স্পোর্টস সিটি স্টেডিয়ামে রোববার দিবাগত রাতে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদকে টাইব্রেকারে ৪-১ গোলে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।
নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময়ে দুই দলই জয় তুলে নেওয়ার যথেষ্ট সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু ২০১৬ চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের মতোই স্পট কিকেই নির্ধারিত হলো দুই নগর প্রতিদ্বন্দ্বীর ভাগ্য। আর মিলানের সেই রাতের মতোই জেদ্দায়ও বিজয়ী হলো রিয়াল মাদ্রিদ।
সেমিফাইনালে ভ্যালেন্সিয়াকে উড়িয়ে দেওয়ার ম্যাচে ৫ মিডফিল্ডার খেলিয়ে সফল হয়েছিলেন রিয়াল কোচ জিদান। সাফল্যের সেই ফর্মুলা তিনি এই ম্যাচেও বহাল রেখেছিলেন।
দ্বিতীয়ার্ধে দুই দলের কোচই খেলোয়াড় বদলানোর সিদ্ধান্ত নেন। হেক্টর হেরেরাকে তুলে নিয়ে ভিতোলোকে নামান সিমিওনে আর ইসকোর জায়গায় রদ্রিগোকে সুযোগ দেন জিদান। খেলা ৯০ মিনিট পেরিয়ে যাওয়ার পরও যখন গোলের মুখ খুলতে পারলো দুই দলই, অতিরিক্ত সময়েই গড়ালো খেলা। কিন্তু এখানেও ফল একই। শেষদিকে রিয়ালের ত্রাতা হিসেবে হাজির হন কুর্তোয়া। মূলত তার নৈপুণ্যেই খেলা শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে গড়ায়। আর সেখানেও তার বীরত্বেই জয় ছিনিয়ে নেয় রিয়াল। টাইব্রেকারে জিদানের দল সবগুলো স্পট কিকেই সফল। আর বেলজিয়ান গোলরক্ষক কুর্তোয়া অ্যাতলেটিকোর দুটি শট ঠেকিয়ে দিয়ে নায়ক বনে যান। জয়সূচক স্পট কিকটি আসে রিয়াল অধিনায়ক রামোসের পা থেকে।