জয়ের নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বের চোখে এক অবাক বিস্ময়

19

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, তিনটি শিল্প বিপ্লব মিস করে অতীতের শতশত বছরের পশ্চাৎপদতা অতিক্রম করা বাংলাদেশকে চলমান ডিজিটাল শিল্প বিপ্লবে শরীক করার নেপথ্য নায়ক হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।
মোস্তাফা জব্বার বলেন, প্রচার বিমুখ এ মানুষটির নেপথ্য ভ‚মিকায় বাংলাদেশ ৫৭তম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণকারী দেশ হিসেবেই নয়, ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বশেষ সংস্করণ ফাইভ-জি প্রযুক্তি চালু করার প্রস্তুতিও আমরা সম্পন্ন করেছি।
এরই ধারাবাহিকতায় চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে বাংলাদেশ বিশ্বের চোখে এক অবাক বিস্ময়।
ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উপলক্ষে গত ২৮ জুলাই বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি (বিসিএসসিএল) আয়োজিত জুম আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী।
বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. নূর-উর-রহমান বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন বিসিএসসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহরীয়ার আহমেদ চৌধুরী।
মন্ত্রী সাধারণের জন্য কম্পিউটার সহজলভ্য করতে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের গৃহীত কর্মসূচি তুলে ধরে বলেন, কম্পিউটারের ওপর ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহারে সজীব ওয়াজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। এরই ফসল হিসেবে দেশে ডিজিটাল বিপ্লবের পথযাত্রা শুরু হয়।
তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্য গত দশ বছরে দেশে ডিজিটাল মহাসড়ক তৈরি হয়েছে। ফাইভ-জি সেবা চালু, তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপন এবং বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২ উৎক্ষেপণের কার্যক্রম আমরা শুরু করেছি। এসব কর্মকান্ডে প্রধানমন্ত্রীর অবৈতনিক উপদেষ্টা সজীব ওয়জেদ জয়ের দিকনির্দেশনার ফলে প্রযুক্তিগত অনেক চ্যালেঞ্জ অতি সহজে অতিক্রম করতে পেরেছি। করোনাকালে ডিজিটাল প্রযুক্তির যে সুফল দেশের মানুষ পাচ্ছেন তা ডিজিটাল প্রযুক্তির বিকাশে তার নিরন্তর চিন্তাভাবনা বাস্তবায়নের সুফল বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী।
সজীব ওয়াজেদ জয়ের ডিজিটাল প্রযুক্তি বিষয়ক বিশেষ ভূমিকার দৃষ্টান্ত তুলে ধরে মোস্তাফা জব্বার বলেন, মহাকাশে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশে তার চিন্তা-চেতনার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।
তিনি বলেন, ২০১৮ সাল থেকে বিগত আড়াই বছরে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ফোর-জি স্পেকট্রাম নিলাম, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ, এমএনপি-এসএমপি চালুসহ বিভিন্ন কর্মসূচি ও নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে প্রচুর চ্যালেঞ্জ গেছে। চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবেলায় উপদেষ্টা অভাবনীয় ভ‚মিকা রেখেছেন।
মোস্তাফা জব্বার সমগ্র দেশবাসী, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ও অধীনের সংস্থাগুলো ও ব্যক্তিগতভাবে নিজের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক অবৈতনিক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। পরে মন্ত্রী ডিজিটাল প্লাটফর্মে গাজীপুর অবস্থিত সজীব ওয়াজেদ উপগ্রহ ভ‚-কেন্দ্রে জন্মদিনের কেক কাটেন।
অনুষ্ঠানে স্যাটেলাইট কোম্পানিতে কর্মরত কর্মকর্তারা, সজীব ওয়াজেদ উপগ্রহ ভ‚-কেন্দ্র ও বেতবুনিয়ায় কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের বিভিন্ন সংস্থার প্রধানগণ অংশ নেন।