‘জয়ের অভ্যাস’ নিয়ে ফাইনাল খেলতে চায় বাংলাদেশ

10

একদিন বিশ্রামের পর আবার ব্যাট-বলের লড়াই। চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে গতকাল শুক্রবার সকালে ঘাম ঝরিয়েছে বাংলাদেশ দল। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালের লাইন-আপ ঠিক হয়ে গেছে আগেই। তবে প্রাথমিক পর্বের শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে আপাত গুরুত্বহীন ম্যাচটিকেও বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে বাংলাদেশ। লক্ষ্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে পরাজয়ের বৃত্ত ভাঙা আর জয়ের ধারায় থেকে ফাইনালে মাঠে নামা। দুই দলের আগের লড়াইয়ে বাংলাদেশকে পাত্তাই দেয়নি আফগানিস্তান। মিরপুরে ম্যাচ শেষে সেদিন বাংলাদেশ অধিনায়ক অকপটে বলেছিলেন, বাংলাদেশের জন্য আফগানিস্তান টি-টোয়েন্টিতে অনেক বড় দল। দুই দলের ক্রিকেটীয় স্কিল ও মানসিকতায় ব্যবধান যথেষ্ট। সেই ব্যবধান ঘুচিয়ে কিভাবে আফগানদের হারানো যায়, উপায় খুঁজছে বাংলাদেশ। আজ শনিবার সেই প্রচেষ্টায় আরেকবার মাঠে নামবেন সাকিব-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা। শুক্রবার দলের অনুশীলনে আফগান স্পিনারদের সামলানো নিয়ে কাজ করা হলো। আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে পাল্টা জবাব দেওয়ার ভাবনা থাকতে পারে দলের, সেটির ইঙ্গিত মিলল নেটে অনুশীলনে।
দারুণ পেশীশক্তির আফগান ব্যাটসম্যানদের থামিয়ে রাখার চ্যালেঞ্জ নিতে নেটে প্রস্তুতি সারলেন বোলাররা। সেই বোলারদের একজন শফিউল ইসলাম। দুই বছর পর টি-টোয়েন্টিতে ফিরে আগের ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নিয়েছেন ৩ উইকেট। নতুন বলে কিছুটা সুইং করানোর সামর্থ্য বাংলাদেশের যে হাতে গোণা দুয়েকজন বোলারের আছে, শফিউল তাদের একজন। কিন্তু চোট প্রবণতা ও অধারাবাহিকতা মিলিয়ে দলে থিতু হতে পেরেছেন কম সময়ই। ক্যারিয়ারে অসংখ্যবার দলে আসা-যাওয়ার পালায় এটি তার নতুন অধ্যায়। শুক্রবার অনুশীলন শেষে দলের প্রতিনিধ হয়ে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হলেন ২৯ বছর বয়সী এই পেসার। জানালেন, ফাইনালের আগে আফগানদের হারাতে কতটা মরিয়া দল। “আমরা চেষ্টা করছি ভালো প্রস্তুতি নিতে। কালকের ম্যাচটি আমাদের সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ভালো খেলতে পারলে সেটি থেকে আমাদের সবার আত্মবিশ্বাস বাড়বে। জয়ের অভ্যাসটি আমাদের ফাইনালে ভালো খেলতে সহায়তা করবে।” “আমরা যদি আমাদের ভুলগুলি শোধরাতে পারি, নিজেদের কাজটি সবাই ঠিক মতো করতে পারি, শতভাগ দিতে পারি, তাহলে ওদের হারানো সম্ভব।” এই চ্যালেঞ্জে নতুন অস্ত্র আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে পাবে কিনা বাংলাদেশ, সেটি নিশ্চিত নয় এখনও। অভিষেকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২ উইকেট নেওয়ার পথে তরুণ লেগ স্পিনার চোট পেয়েছেন বাঁহাতে। হাতে তিন সেলাই নিয়েই অবশ্য শুক্রবার নেটে বোলিং করেছেন দীর্ঘসময়। এই চোট নিয়ে ম্যাচ খেলা অসম্ভবও নয়। তবে ফাইনালের আগে হয়তো তাকে খেলিয়ে ঝুঁকি নেবে না দল।