তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন শীর্ষক সভায় বিভাগীয় কমিশনার

জাতিকে সুস্থ রাখতে ধূমপান থেকে সন্তানদের বিরত রাখুন

9

বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। ধূমপানের কারণে মানুষ মারাত্মক জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। কমে যাচ্ছে আয়ুষ্কাল। এর পরও ধূমপায়ীরা সচেতন হয় না। সিগারেটের মোড়কে যে সতর্কবাণী দেয়া হয় সেটা আরো দৃশ্যমান করতে হবে। ২০০৫ সালে সরকার যখন তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন প্রণয়ন করে তখন প্রকাশ্যে ধূমপান করলে জরিমানার বিধান ছিল মাত্র ৫০ টাকা। ২০১৩ সালে করা হয় ২শ টাকা, বর্তমানে প্রকাশ্যে ধূমপানে জরিমানা ৩শ টাকা।
তিনি বলেন, অফিস-আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, গণপরিবহন ও খোলা জায়গায় ধূমপান করা প্রথম থেকেই নিষিদ্ধ থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। বর্তমানে বিভিন্ন কারণে আমাদের সন্তানরা ধূমপানে জড়িয়ে পড়ছে। সিগারেট টানলে স্মার্ট হওয়া যায় না। ধূমপান নির্দিষ্ট জায়গায় করতে হয়। নিজে ধূমপান করলে অন্যের ক্ষতি করা যাবে না। জাতিকে সুস্থ-সবল রাখতে হলে ধূমপান থেকে আমাদের সন্তানদের বিরত রাখতে হবে। এজন্য প্রত্যেক অভিভাবককে সচেতন থাকতে হবে।
গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে আয়োজিত ‘তামাকজাত দ্রব্যের মোড়কে সচিত্র স্বাস্থ্য সর্তকবাণী সংক্রান্ত তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন’ বাস্তবায়ন শীর্ষক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেল, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয় এবং চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার অফিস যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করে।
জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের যুগ্ম সচিব ও সমন্বয়কারী মো. খায়রুল আলম শেখের সভাপতিত্বে এবং বিভাগীয় কমিশনার অফিসের সহকারী কমিশনার মোজাম্মেল হক চৌধুরীর সঞ্চালনায় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামী। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বিশ্ব স্বাস্থ্য) মো. সাইদুর রহমান ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির। মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের প্রোগ্রাম অফিসার আমিনুল ইসলাম। বিভাগীয় সভায় তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডা. জিএম আবু তৈয়ব, দি ইউনিয়ন’র কারিগরি উপদেষ্টা এডভোকেট সৈয়দ মাহবুবুল আলম, বেসরকারী সংস্থা-ইপসা’র টিম লিডার নাসিম বানু শ্যামলী প্রমুখ।
স্বাগত বক্তব্যে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামী সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে নতুন প্রজন্মকে তামাকের ব্যবহার থেকে মুক্ত রাখার আহবান জানান। বিজ্ঞপ্তি