জনকল্যাণ পরিষদের ‘ভালোবাসার উপহার’

9

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া নিম্ন ও মধ্যবিত্ত ৬০০ পরিবারে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের ‘ভালোবাসার উপহার’ পৌঁছে দিয়েছেন মানবতার কল্যাণে প্রতিষ্ঠিত নারায়ণহাট প্রবাসী জনকল্যাণ পরিষদ। ১৯ মে মঙ্গলবার সকাল হতে আল হাসানাইন মডেল মাদরাসা থেকে তোহফাগুলো ঘরে ঘরে পোঁছানোর কার্যক্রম শুরু হয়। ভালোবাসার উপহার প্রেরণ প্রসঙ্গে নারায়ণহাট প্রবাসী জনকল্যাণ পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা মুহাম্মদ শফিউল আজম বাদশা বলেন, মহান আল্লাহ আমাদের কিছুটা সামর্থ্যবান করেছেন। স্বল্প সামর্থ্য থেকে এ ক্রান্তিলগ্নে মানুষের পাশে দাঁড়াতে পেরে আমরা আনন্দিত। সৃষ্টির সেবাই স্রষ্টা মিলে। আর স্রষ্টার কৃতজ্ঞতা স্বীকারের মাধ্যম এটি। তোহফা গুলো প্যাকেটিং কাজ করছেন জনাদশেক লোক। তাদের নির্দেশনা ও দেখভাল করেছেন নারায়ণহাট প্রবাসী জনকল্যাণ পরিষদ এর সম্বনয়ক মুহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন সিদ্দিকী। তিনি বলেন, আমাদের নারায়ণহাট প্রবাসী জনকল্যাণ পরিষদ বছরজুড়েই বিভিন্ন সেবাধর্মী কাজ করেন। ওনাদের এসব কাজের সাথে আমরা পরিচিত। তাই ওনাদের সেবা উদ্যোগকে স্বাগত জানাতে ও বাস্তবায়ন করতে আমরা নিজ উদ্যোগে কাজ করে যাচ্ছি। নারায়ণহাট ইউনিয়ন বিভিন্ন ওয়ার্ড গুলোতে ভালোবাসার তোহফাগুলো ঘরে ঘরে পৌঁছাতে সম্বনয়ের কাজ করেছেন ১ নং ওয়ার্ডে মুহাম্মদ মহিউদ্দিন, ২ নং হাপানিয়া ওয়ার্ডে সাইফুল আজম রাশেল, ৩ নং পিলখানা ও খামারভিটা ওয়ার্ডে ব্যবসায়ী মুহাম্মদ নাছির উদ্দীন, ৪ নং ওয়ার্ডে মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, ৫ নং ওয়ার্ডে মুহাম্মদ রানা, ৬ নং চানপুর ওয়ার্ডে মুহাম্মদ নুরুন্নবী রোমান, ৭ নং পশ্চিম চানপুর ওয়ার্ডে জিয়া উদিন বাবলু, ৮ নং শৈলক‚পা ওয়ার্ডে বাবু নাছির উদ্দীন, ৯ নং ইদিলপুর ওয়ার্ডে মুহাম্মদ শাহাদাত হোসেন। তাছাড়াও সম্বনয়কদের নিজ তত্বাবধানে পাহাড়ি অঞ্চল আনন্দপুর, বাদুরখিল, সাপমারা, পিলখানা, ধামারখিল, শ্বেতছড়া সহ বিভিন্ন অঞ্চলে ভালবাসার তোহফা পৌছানো হয়। জনাসমাগম না করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সহায়তা ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার কথা জানিয়ে বাংলাদেশ সম্বনয়ক ছাত্রনেতা মুহাম্মদ আবুল হোসেন বলেন, করোনার কারণে অনেক সচ্ছল পরিবারও কষ্টে দিনাতিপাত করছে। একসময়ের সচ্ছল পরিবারগুলো বিপদের এ মুহুর্তে আত্মসম্মানবোধের কথা চিন্তা করে সাহায্যও চাইতে পারছেন না। তাই আমরা তাদের কথা চিন্তা করে আমাদের সহায়তা কার্যক্রম ডোর টু ডোর করছি এবং ছবি সংস্কৃতির আওতামুক্ত রাখছি। অপরিকল্পিত উপায়ে সহায়তা কার্যক্রমের কারণে কোন পরিবার বারবার পাচ্ছে আবার কিছু একেবারেই পাচ্ছে না বলে উল্লেখ করে তিনি বিত্তবানদের সহায়তা কার্যক্রমগুলো পরিকল্পিতভাবে পালন করার আহবান জানান। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জমিদারপাড়া বসুন্ধরা যুব সংগঠন এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ নাঈম উদ্দিন, সংগঠক মুহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম, যুন নুরাইন এন্টারপ্রাইজ পরিচালক মুহাম্মদ জমিরুল হাছান, মুহাম্মদ আবদুর রাজ্বাক, মুহাম্মদ রাইয়ান চৌধুরী প্রমুখ। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে ‘ভালোবাসার উপহার’ উদ্যোগটি প্রকাশ্য-অপ্রকাশ্য ভাবে চলবে ও প্রয়োজনে সহায়তার আওতায় আরো পরিবারকে যুক্ত করার কথাও জানান নারায়ণহাট প্রবাসী জনকল্যাণ পরিষদ এর আহবায়ক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম ও সদস্য সচিব মুহাম্মদ ওসমান গণী জুয়েল। বিজ্ঞপ্তি