ছোটদের নিয়ে রবীন্দ্র ভাবনা

সুপ্রতিম বড়ুয়া

58

নানান বৈচিত্রের একজন সাহিত্য ব্যক্তিত্ব কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ। কবিগুরুকে বলা যায় একজন খেয়ালিপনা মানুষ। সাহিত্যের মধ্যে তাঁর পদচারণা, সৃজনশীলতা, চিন্তা চেতনা বিচিত্র রকমের। সাহিত্যের বিচিত্র রকমের সাধ, রস, গন্ধ এবং ইচ্ছে সবই ছিল কবিগুরুর মনের গভীরে। ছোটদের মত কবিগুরুর মনটাও। যখন যা দেখেছেন তাই করতে চেয়েছেন, তা করেছেনও। তাঁর কবিতায় ছড়ায় শিশুদের যাবতীয় মনের কল্পনা, শিশুদের অনুভূতি প্রকাশ পেয়েছে। যেমন- ‘বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর, নদেয় এল বান’। শিশুদের বৃষ্টি খুব পছন্দ। বৃষ্টি এলেই শিশুরা আবেগ আপ্লুত হয়ে যায়। সেই শিশুদের পছন্দের বৃষ্টি নিয়ে কবিগুরুর অনুভূতি শৈল্পিক চেতনার নান্দনিক প্রকাশ খুঁজে পাওয়া যায়। একজন সফল নান্দিকার হিসেবে কবিগুরুর অবস্থান সুদৃঢ়। আরও একটি কবিতার কথা বলা যায় সেটা কবিগুরুর ‘মা’ কবিতায়। তিনি মা কবিতায় লিখেছেন ‘মেঘের মধ্যে মা গো যারা থাকে, তারা আমায় ডাকে,আমায় ডাকে। আমি বলি,মা যে আমার ঘরে,তাকে ছেড়ে থাকব কেমন করে।’ এখানে বলতে হয় শিশুমন, শিশু অনুভূতি না থাকলে শিশুদের নিয়ে কিছু লিখা খুবই কঠিন। কিন্তু রবীন্দ্রনাথ নিজেকে একেবারে শিশুর মত মন ধারন করে তাঁর ‘মা’ কবিতাটি লিখেছেন। শিশুমনকে হৃদয়ে ধারন করে কবিগুরু যা যা লিখেছেন প্রত্যেকটি কবিতা জীবন্ত এবং প্রাণবন্ত। তাঁর ‘বীরপুরুষ’ কবিতায় অসাধারণ শিশুমনের ভাবনা-চিন্তা প্রকাশ পায়। তিনি লিখেছেন ‘মনে করো যেন বিদেশ ঘুরে, মাকে নিয়ে যাচ্ছি অনেক দূরে। তুমি যাচ্ছ পালকিতে মা চড়ে, দরজা দুটো একটুকু ফাঁক করে, আমি যাচ্ছি রাঙা ঘোড়ার পরে, টগবগিয়ে তোমার পাশে পাশে’। কবিগুরুর এই ‘বীরপুরুষ’ কবিতায় কি অসাধারণ কল্পনাশক্তি শিশুদের নিয়ে। মন ছুঁয়ে যাওয়া ছন্দে ছন্দে রবীন্দ্রনাথের এই কাব্যসৃষ্টি সত্যি অভাবনীয় ভালোলাগার আকাশ ছুঁয়ে যায়। শিশুদের নিয়ে তাঁর রচিত নাটক, কবিতা, ছড়া, গল্প এতই যে সমৃদ্ধ করেছে যা বলার অবকাশ রাখেনা। ছোটদের নিয়ে তার একটি জনপ্রিয় ছোটগল্প ‘ছুটি’। এই গল্পের মূল চরিত্র ফটিক। সেই ফটিকের দুরন্তপনা নিয়ে যেভাবে কবিগুরু শক্তিশালী কাহিনীরূপ দিয়েছেন, যে কেউ এই ছোটগল্প পড়লেই তার কল্পনাশক্তি নাড়া দেবে। সাহিত্য ভাবনার মধ্যে রবীন্দ্রনাথ শিশুর ভাবনা, শিশুর কল্পনা, শিশুর স্বপ্ন, শিশুদের আকাঙ্খা প্রতিফলিত করেছে এবং কবিগুরুর মনকে নাড়া দিয়েছে। ফলে তাঁর কবিতা, নাটক, ছড়া, গল্পের প্রতিটি ক্ষেত্রেই শিশুরা এসেছে ঘুরে ফিরেই। তিনি মনে প্রাণে চেয়েছিলেন শিশুদের নিয়ে নাটক যেন শিশু-শিক্ষার অঙ্গ হয়ে উঠে। যেমন রবীন্দ্রনাথ এর ‘তোতাকাহিনী’ সম্পূর্ণ শিশু শিক্ষা নিয়ে লেখা একটি ক্ষুদ্র গল্প বা ছোট গল্প। তাই একজন সংবেদনশীল কবি বললেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথকে বলা যায়। অর্থাৎ তিনি একজন প্রকট অনুভূতি সম্পন্ন কবি। নানা বৈচিত্রের এই নোবেলজয়ী কবি শিশুদের নিয়ে নানা আঙ্গিকের লেখা ছাড়াও শিশুদের জন্য গান, নৃত্যনাট্য ইত্যাদি লিখে গেছেন।