ছোটদের ছড়া ও কবিতা

47

রবীন্দ্রনাথ
শেলীনা আকতার খানম

রবীন্দ্রনাথ ভালোবাসার
দুরন্ত এক নাম,
জ্ঞানের আলোয় আলোকিত
শিখা অবিরাম।

সৃষ্টি তোমার দৃষ্টি কাড়ে
নিত্য টানে মন,
ছন্দ তালে সাড়া জাগায়
গায়ক-সাধকগন।

তোমার ছোঁয়ায় সৃষ্টি বেলা
খুশি পাগলপারা,
সজীব শ্যামল নীল চাদোয়ায়
সুখের জল ধারা।

নিটোল ধারায় শীতল পরশ
তোমার গানে জয়,
ঠিক চিরকাল অমর তুমি
অমলিন-অক্ষয়।

তিনিই সেই রবি
পদ্যোত কুমার বড়ুয়া

সোনার তরী আনলো ঘরে
নোবেল করে জয়
সেই থেকে তো বাংলা ভাষার
আলো জ্যোর্তিময়।

বাংলা-আলো জ্বালিয়ে ছিলেন
তিনিই সেই রবি
জোড়াসাঁকোর ঠাকুর বাড়ির
ছেলে বিশ্বকবি।

আছেন পেয়ে শ্রদ্ধা-ভক্তি
বাঙালিদের ঘরে
গান কবিতা গল্প ছড়ায়
থাকেন তো অন্তরে।

বাংলা ভাষা আলো করে
এখন স্বর্গে বাস
তাঁরই মৃত্যু দিবস হলো
বাইশে শ্রাবণ মাস।

ঈদ এসেছে
হুমায়ুন আবিদ

ঈদ এসেছে বাঁকা চাঁদে
শহর গাঁয়ের মাঝে
ঈদ খুশিতে চারিদিকে
সুখের বাঁশি বাজে।

ঈদ এসেছে প্রীতি সুরে
ভালোবাসার রঙে
হিংসা বিদ্বেষ ভুলে সবাই
নাচে খুশির ঢঙে।

ঈদ এসেছে হাসি গানে
সব মানুষের ঘরে
ফিরনি পায়েস পোলাও খাবে
সবাই মজা করে।

ঈদ এসেছে সাম্য ন্যায়ে
বিভেদ করে চূর্ণ
ঈদের দীক্ষায় মানব মনের
সব আশা হোক পূর্ণ।

বিশ্বকবি
নূর নাহার নিপা

রবি তুমি নীল আকাশের ঘুড়ি
রেখে গেলে কাব্য কথার ঝুড়ি
আমার ও তো লিখতে হবে তবে
খাতা কলম বসছি নিয়ে সবে।

তোমার সোনার বাংলায় গাই গান
সেই সুরে হয় দুঃখ সকল ম্লান।
তোমার গল্প কি কবিতায় বলো-
ছন্দে গানে বিশ্ব অবাক হলো।

আঁকলে ছবি সত্যি ছবির মতো
সৃষ্টি তোমার জানি হাজার শত।
ডাইনে বামে সৃষ্টি তোমার সবি
তুমি রবি ঠাকুর সেরা কবি।

ত্যাগের পরীক্ষা
রেজাউল রেজা

নিজ সন্তান করতে জবাই
হাত কাঁপেনি বাবার
এমন ত্যাগের জানান দিতে
ঈদ এসেছে আবার।

খোদার আদেশ মানতে হবে
কষ্ট যতই হোক
আল্লাহ শুধু ত্যাগটা দেখেন
তুমিই করো ভোগ।

ত্যাগ পরীক্ষা কুরবানীর ঈদ
মাংস খাওয়া নয়,
এই পরীক্ষায় পাশ করাটাই
মস্ত বড় জয়।

ঈদ কোরবানি
অভিজিত বড়ুয়া বিভু

কাল বাদে পরশু
ঈদ কোরবানি
তাইতো চারদিক
সুখ সুর বাণী।

বাজারে দৌঁড়ঝাপ
রাস্তায় ভিড় চাপ

আন্তরিকতা ত্যাগ
মহিমাও মানি
ঈদ খুশি, দূর হউক
কষ্ট দুখ গ্লানি।

ঈদের প্রহর
অপু চৌধুরী

দেশ জুড়ে আজ কী আনন্দ
কত্তো কোলাহল
কোরবানির ঈদ এলো বুঝি
নামলো খুশির ঢল।

নাওয়া খাওয়া নেই বুঝি আর
ছোটে গরুর হাটে
শিং ওয়ালা লাল গরুর সাথে
খেলায় মাতে মাঠে।
শাসন বারণ মানে না কউ
কিসের রাত্রি-ভোর
কল্প চোখের স্বপ্ন আঁকায়
আনন্দে বিভোর।

আবার তারা আত্মহারা
ত্যাগের স্বপ্ন বুনে
সবার মনের খুশির আমেজ
ঈদের প্রহর গুনে।

কোরবানি
আব্দুস সালাম

ধনী গরিব এক সমাজে
বাস করে তা জানি
অর্থ-কড়ি আছে যাদের
দেয় তারা কোরবানি।

কোরবানিতে ত্যাগের কথা
যাই না যেন ভুলে
সাধ্যমতো দীন-দুখীদের
দেবই কিছু তুলে।
ভালো ভালো খাবার হবে
ঘরে ঘরে রান্না
খুশির দিনে গরিব-দুখীর
দেখব না আর কান্না।

সব ভেদাভেদ ভুলে সবাই
যাব ঈদের নমাজে
শান্তি সুখের বইবে বাতাস
আমাদের এই সমাজে।