ছুটির দিনে বাণিজ্যমেলায় উপচেপড়া ভিড়

39

‘ছুটির দিনে ভিড় বেশি কিন্তু বেচা কম। তারপরও খুশি, মেলায় মানুষ আসছে। দরদাম করছে, পণ্য পছন্দ করছে।’ পলোগ্রাউন্ড মাঠে চট্টগ্রাম চেম্বার আয়োজিত বাণিজ্যমেলায় থাই প্যাভিলিয়নে মুখরোচক চকলেটের স্টলের মালিক মো. বাবুল এসব কথা বলেন।
পাশের স্টলে সাইদুর রহমান বিক্রি করছিলেন মেয়েদের মাথার ক্লিপ, চুলের খোঁপা, ব্যাগ, চাবির রিং ইত্যাদি। তিনিও বলেন প্রায় একই কথা ‘লোক বেশি বেচা কম’। এখানে সর্বনিম্ন ৫০ টাকায় চুলের ক্লিপ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ আড়াই হাজার টাকায় ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে। মো. হেলালের থাই সু’র স্টলে ৩০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকায় মিলছে মেয়েদের সু, স্যান্ডেল ইত্যাদি।
থাই প্যাভিলিয়নে আগ্রহ বেশি দর্শক-ক্রেতারথাই প্যাভেলিয়ন থেকে কেনাকাটা করছিলেন গৃহিণী আকলিমা সরওয়ার। তিনি বলেন, ৫০০ গ্রাম মিষ্টি তেঁতুল কিনলাম ২৫০ টাকা। বড় কথা হচ্ছে, থাই প্যাভেলিয়নে সবাই বাঙালি। ভেবেছিলাম থাইল্যান্ডের লোকজন স্টলে বেচাকেনা করবেন। খবর বাংলানিউজের
গতকাল শুক্রবার বিকেলে মেলা প্রাঙ্গণে ছিল উপচে পড়া ভিড়। নানা বয়সী মানুষের ঢল ছিল মূল ফটকে। মেলার ভেতরে বার বার ঘোষণা শোনা যায় হারিয়ে যাওয়া শিশু খুঁজে পাওয়ার। সন্ধ্যায় আলো ঝলমলে মেলা হয়ে ওঠে বর্ণিল।
আবুল খায়ের গ্রুপ, হাতিল, পারটেক্স, নাভানা, নাদিয়া, রিগ্যাল ফার্নিচার, বনফুল কিষোয়ান গ্রুপ, এস আলম গ্রæপ, প্রাণ, আরএফএল (বেস্ট বাই), দুরন্ত বাইসাইকেল, মিনিস্টার, ইজি বিল্ড, বেঙ্গল, মি. নুডলস, বিআরবি, ফরেন জোন, থাই জোন, কিয়াম, বিএসএম এলইডির দৃষ্টিনন্দন সাজসজ্জা নজর কাড়ে দর্শক-ক্রেতাদের। ধুম পড়ে সেলফি তোলার।
দেশি সাইকেল বিক্রি হচ্ছে ৭ হাজার ২০০ থেকে ৪৭ হাজার ৫০০ টাকা। মেলায় ঘুরতে ঘুরতে ক্লান্ত মানুষ ঝড় তোলেন চায়ের কাপে। ইস্পাহানি চা কর্নারে রং চা বিক্রি হচ্ছে ৫ টাকা, দুধ চা ১০ টাকা। সিলনের প্যাভেলিয়নে ৪ পদের চা বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা করে। এছাড়া মি. নুডলসের প্যাভেলিয়নে ৩৫ টাকা কাপ নুডলসে গরম পানি ঢেলে মজা করে খেতে দেখা গেছে শিশুদের।
মেলা উপলক্ষে প্যাভেলিয়নসহ বিভিন্ন স্টলে পণ্যসামগ্রীতে দেওয়া হচ্ছে বিশেষ ছাড়। প্রাণ লাচ্ছা সেমাই ১ প্যাকেটের দামে দেওয়া হচ্ছে ২ প্যাকেট। ২৪টি নুডলসের সঙ্গে একটি আরএফএলের ঝুড়ি ফ্রি। রকমারি প্লাস্টিক পণ্যের বিকিকিনি ছিল জমজমাট। এছাড়া গৃহস্থালি পণ্য, ভোগ্যপণ্য, খেলনা, গহনা, বিছানার চাদর ইত্যাদির চাহিদা বেশি দেখা গেছে।
মেলা প্রাঙ্গণে সেলফি তোলার ধুম পড়ে। মোস্তফা ট্রেডার্সের স্টলে ছিল সাইকেলপ্রেমীদের ভিড়। যেখানে দেশে তৈরি বিভিন্ন ব্রান্ডের সাইকেল মিলছে ৭ হাজার ২০০ থেকে ৪৭ হাজার ৫০০ টাকা। শিশুদের খেলনা সাইকেল বিক্রি হচ্ছে ৪ হাজার টাকায়। একটি মোটা চাকার সাইকেলের দাম হাঁকা হচ্ছে ১৪ হাজার ৪০০ টাকায়।
মেলায় একমাত্র গাড়ির প্যাভেলিয়নটি পিএইচপি অটোমোবাইলসের। মালয়েশিয়ার প্রোটন কার এবং পিএইচপির নিজস্ব মোটরসাইকেলের বুকিং নেওয়া হচ্ছে বিশেষ ছাড় ও সুযোগে। প্রতিষ্ঠানের হেড অব সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং এসএম শাহিনুর রহমান জানান, মেলায় এ পর্যন্ত প্রোটন কারের বুকিং পেয়েছি ২৬টি। এর মধ্যে ৫-৬ টি ডেলিভারি দেওয়া হয়েছে। মোটরসাইকেল বুকিং হয়েছে ১৪টি। এর মধ্যে ১টি ক্যাশ সেল হয়েছে। খবর বাংলানিউজের।