উপজেলা নির্বাচন

চেয়ারম্যান পদে সবাই বৈধ

সাত ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক

22

দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া উত্তর চট্টগ্রামের সাত উপজেলার প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র যাচাই-বাছাইয়ের দিনে চেয়ারম্যান পদের সকল প্রার্থী বৈধ হয়েছেন। পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের সাতজন প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। মনোনয়ন পত্রের সাথে আয়কর রিটার্ন দাখিল না করা, হলফনামা জমা না দেয়া, ঋণখেলাপী, স্বতন্ত্র প্রার্থী এক শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষর দিতে না পারায় গতকাল মনোনয়ন পত্র যাচাইকালে তাদের মনোনয়ন বাতিল করেন দুই রিটার্নিং কর্মকর্তা।
জানা যায়, উত্তর চট্টগ্রামের সাত উপজেলার মধ্যে সন্দ্বীপ, রাঙ্গুনিয়া ও সীতাকুন্ড উপজেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. কামাল হোসেন ও হাটহাজারী, মিরসরাই, ফটিকছড়ি, রাউজান উপজেলায় জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান পূর্বদেশকে বলেন, সাত উপজেলার মধ্যে চেয়ারম্যান পদে সকল প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ হয়েছেন। তবে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয় জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একজন প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। এখন চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে একজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুইজন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন।
সূত্র জানায়, মিরসরাইয়ে ভাইস চেয়ারম্যান আবুল হোসেন সিআইবি রিপোর্ট অনুযায়ী খেলাপী হওয়ায় তার প্রার্থীতা বাতিল হয়েছে। ফটিকছড়িতে এম রেজাউল করিম দ্বীনুর জমা দেয়া ২৫০জন ভোটারের স্বাক্ষরযুক্ত তালিকা হতে দ্বৈবচয়নের ভিত্তিতে কমিশন হতে প্রাপ্ত পাঁচজন ভোটারের মধ্যে কোন ভোটার পাওয়া যায়নি। হাটহাজারীতে সৈয়দ মোস্তফা আলম আয়কর রিটার্নের রসিদ, হলফনামায় প্রার্থীর স্বাক্ষর না থাকায় দ্বৈবচয়নে দেয়া পাঁচজন ভোটারের মধ্যে চারজনের স্বাক্ষর নকল করা হয়েছে বলে প্রমাণিত হওয়ায় এ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়। এই উপজেলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী নুসরাত জাহানের দেয়া দ্বৈবচয়ন তালিকায় পাঁচজন ভোটারের মধ্যে একজন ভোটারকে না পাওয়ায় প্রার্থীতা বাতিল হয়েছে। রাঙ্গুনিয়ায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন তালুকদার আয়কর রিটার্ন জমা না দেয়ায় এবং নতুন ব্যাংক হিসাব না খোলায় মনোনয়ন বাতিল হয়েছে। একই উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ফজলুল ইসলামের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে হলফনামা প্রদান না করায়। স›দ্বীপে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মাঈনুদ্দিনের মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়েছে জেলা পরিষদ কর্তৃক ঋণখেলাপী হওয়ায়।
চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন বৈধ হয়েছে-রাঙ্গুনিয়ায় খলিলুর রহমান চৌধুরী, সীতাকুন্ডে এসএম আল মামুন, স›দ্বীপে মো. শাহজাহান, মিরসরাইয়ে জসীম উদ্দিন, ফটিকছড়িতে হোসাইন মো. আবু তৈয়ব, মো. নাজিম উদ্দিন মুহুরী, মো. আবছার উদ্দিন, রাউজানে একেএম এহেছানুল হায়দার চৌধুরী, হাটহাজারীতে এসএম রাশেদুল আলম, আবুল মনছুর। এরমধ্যে রাউজান, সীতাকুন্ড, মিরসরাই, রাঙ্গুনিয়া, সন্দ্বীপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীরা। হাটহাজারী ও ফটিকছড়িতে বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে থাকায় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা।
প্রসঙ্গত, আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। আসছে ১৮ মার্চ উত্তর চট্টগ্রামের সাত উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।