চুয়েট ভিসির সঙ্গে জাপান দূতাবাস প্রতিনিধিদের সাক্ষাৎ

9

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) এর ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলমের সঙ্গে বাংলাদেশে নিয়োজিত জাপান দূতাবাসের প্রতিনিধি দল সৌজন্য সাক্ষাৎ ও মতবিনিময় করেছেন। বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর কার্যালয়ে মতবিনিময় সভায় প্রতিনিধি দলের সদস্য জাপান দূতাবাসের মিনিস্টার মিস্টার তাকেশি ইতো এবং দূতাবাসের জনসংযোগ বিভাগের প্রধান মিস মাই তোমোরি উপস্থিত ছিলেন।
এ সময় চুয়েটে কর্মরত জাপানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের এলামনাই পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রহমান ভূঁইয়া, যন্ত্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বণিক, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী দেলোয়ার হোসেন, যন্ত্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহম্মদ, পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফুল হক, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ, পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. জি.এম সাদিকুল ইসলাম, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মহি উদ্দিন, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. এম কে মোহাম্মদ জিয়াউল হায়দার, ইলেকট্রনিক্স এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. আজাদ হোসেন, পুরকৌশল বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. আফতাবুর রহমান, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদ রহমান ও সহকারী অধ্যাপক ড. নুসরাত জাহান, স্থাপত্য বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সজল চৌধুরী ও সহকারী অধ্যাপক তাজিয়া রহমান, মানবিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফরহাত জামিলা এবং স্থাপত্য বিভাগের প্রভাষক বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, জাপান থেকে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা সম্পন্ন করে ২১ জন শিক্ষক বর্তমানে চুয়েটে বিভিন্ন বিভাগে শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন।
মতবিনিময়কালে জাপান দূতাবাসের প্রতিনিধিরা চুয়েটের সাথে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা ক্ষেত্রে দ্বি-পাক্ষিক সহযোগিতা ও সম্পর্কোন্নয়নে কাজ করার আগ্রহ পোষণ করেন। এ সময় জাপান এলামনাইদের জাপান হতে অর্জিত জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে চুয়েট তথা বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখার কথা স্মরণ করিয়ে দেন।
একইসাথে জাপান সরকার বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে জাপান আরো বেশি অবদান রাখতে চান বলেও তারা জানান। চুয়েট ভিসি বলেন, জাপান বাংলাদেশের পরীক্ষিত বন্ধু রাষ্ট্র। আগামী দিনগুলোতে জাপান-বাংলাদেশের পারস্পরিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। বিজ্ঞপ্তি