চীনাদের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

0

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের উইঘুর মুসলিমদের ওপর নিপীড়নের ঘটনায় সম্পৃক্ততার অভিযোগে জড়িত চীনা সরকারের কর্মকর্তা এবং কমিউনিস্ট পার্টির বিভিন্ন কর্মকর্তাসহ তাদের পরিবারের সদস্যদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, উইঘুর জনগোষ্ঠীর ওপর ভয়াবহ নিপীড়ন চালাচ্ছে চীনা প্রশাসন। তবে চীনের তরফ থেকে বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চীনকে অবিলম্বে এই উইঘুর স¤প্রদায়ের সদস্যকে মুক্তি দেয়ার আহŸান জানিয়েছেন। কিন্তু চীন বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। সোমবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জেং সুয়াং বলেন,‘যুক্তরাষ্ট্র চীনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের যে ধরনের অভিযোগ করছে, এই ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি।’ তিনি আরো বলেন, চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের জন্য যুক্তরাষ্ট্র মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ করছে।
একই অভিযোগে গত সোমবার ২৮ চীনা প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। ফলে ওই চীনা প্রতিষ্ঠানগুলো ওয়াশিংটনের অনুমতি ছাড়া কোনও মার্কিন পণ্য কিনতে পারবে না। চীনের ওই ২৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সরকারি এবং প্রযুক্তিগত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এটাই প্রথম নয়। এর আগেও বিভিন্ন চীনা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে গত মে মাসে নিরাপত্তা শঙ্কার কারণ দেখিয়ে চীনের বৃহত্তম টেলিকমিউনিকেশন প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়েকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়। স¤প্রতি উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য যুদ্ধ চলছে।
এক দেশ অন্য দেশের ওপর আমদানি-রপ্তানিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে। গত মাসে নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে চীনের বৃহত্তম টেলিকমিউনিকেশন প্রতিষ্ঠান ‘হুয়াওয়েকে’ কালো তালিকাভুক্ত করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। চীনে সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের ওপর নিপীড়ন ও নির্যাতনের কারণে চীনা সরকারের তীব্র সমালোচনা রয়েছে।