চিকিৎসামুখী স্মার্ট পরিধেয় প্রযুক্তি

7

মাইক্রোচিপ আর ইন্টারনেট সংযোগে ক্রমেই বিস্তৃত হচ্ছে পরিধেয় প্রযুক্তির (ওয়্যারেবল টেকনোলজি) ধারা। মানবদেহের দেখভাল করা থেকে শুরু করে ব্যক্তির নিরাপত্তা, যত্ন আত্তি এমনকি বিনোদন ও পরাবাস্তবতার সঙ্গে সাক্ষাৎ ঘটাচ্ছে আজকের পরিধেয় প্রযুক্তি পণ্য।
বলতে গেলে ফিটনেস অ্যক্টিভিটি ট্র্যাকার এই পরিধেয় প্রযুক্তির ভুবনে জাগরণ সৃষ্টি করেছে। গুগলের প্রযুক্তি চশমা (গুগল গালাস) হালে পানি না পেলেও স্মার্ট হাতঘড়ি দারুণ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।
মূলত, ব্লুটুথ হেডসেট, স্মার্ট হাতঘড়ি এবং ওয়েব সংযুক্ত চশমা সবই তারহীন প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে রাজ্যের তথ্য আদান প্রদান করে ব্যবহারকারীর কাছে পছন্দের শীর্ষে উঠে গেছে।
দৈনন্দিন কাজেই নয় গেমিং ইন্ডাস্ট্রিতেও এসেছে এই পরিধেয় প্রযুক্তি। ভার্চুয়াল রিয়েলিটি ও অগমেন্টেড রিয়েলিটি হেডসেটগুলো দৃশ্যকল্পনাকে বাস্তবে নিয়ে আসছে যেন। সবমিলিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে পরিধেয় প্রযুক্তিটি তড়িৎ প্রকৌশল থেকে আরও এক ধাপ এগিয়ে গিয়ে ভোক্তাকেন্দ্রিক হয়ে পড়ছে। বিশেষায়িত এবং বাস্তব অ্যাপ্লিকেশন যুক্ত করা হচ্ছে এই ধারায়। তাই চাবি কিংবা পাসওয়ার্ডের জায়গাটা এখন দখল করে নিচ্ছে মাইক্রোচিপ। এই চিপগুলো নিয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন (এনএফসি) অথবা রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন (আরএফআইডি) ব্যবহার করে পোষ্যদের দেখভালে ব্যবহার হচ্ছে। এর মাধ্যমে হারিয়ে যাওয়া পোশা প্রাণিকে যেমন সনাক্ত করা যাচ্ছে একইভাবে বিশ্বে বিভিন্ন প্রান্তে নিয়োজিত সেনাদের দেখভালে আরএফআইডি ব্যবহার করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।
মেডিকেল ডিভাইস হিসেবেও এখন ব্যবহার হতে শুরু করেছে পরিধেয় প্রযুক্তি পণ্য। বাচ্চার ডায়াপার ভিজে গেল কি না তার জন্যও পরিধেয় প্রযুক্তি শরণাপন্ন হচ্ছেন আজকের মায়েরা। তবে এই পরিধেয় প্রযুক্তিটি সাম্প্রতিক সময়ে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকেছে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য সেবায়।
এই যেমন সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকিতে বাতাসে দূষণ পরিমাপ এবং ওই অঞ্চলের অধিবাসীদের শ্বাস প্রশ্বাসে বাতাসের প্রভাব পর্যবেক্ষণে ব্যবহার হচ্ছে পরিধেয় প্রযুক্তি। পার্কিনসন্স রোগ সনাক্ত করতে এর লক্ষণ এবং সংক্রমণ বিষয়টি আগেই জানিয়ে দিচ্ছে নগর সাস্থ্য বিভাগকে। এভাবেই চলতি বছর থেকে পরিধেয় প্রযুক্তিটি থেরাপির ক্ষেত্রে মূলধারার চলে এসেছে।
স্মার্ট অন্তর্বাস: স্তনক্যান্সার রোগ সনাক্তের জন্য কৃত্রিমবুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন প্যাচযুক্ত আইটিব্রা তৈরি করেছে সারকাডিয়া হেলথ। এই পরিধেয় প্রযুক্তির অন্তর্বাসটি ব্যবহারকারীর স্তন ক্যন্সারের লক্ষণ পাওয়া মাত্রই সতর্ক বার্তা দেয়। শুধু তাই নয়, উদ্বেগজনক কোনও উপাত্ত পাওয়া মাত্রই তা ল্যাবে পঠিয়ে দেয়।
স্মার্ট ট্যাটু: কখনও ডিভাইসে, কখনোবা পোশাকের সঙ্গে জুড়ে দিয়ে কিংবা ট্যাটুর মতো শরীরে লাগিয়ে ঝামেলামুক্ত হ্যান্ডস ফ্রি এসব গ্যাজেট এখন সব বয়সের ও শ্রেণি পেশার মানুষের কাছে আরাধ্য হয়ে উঠেছে। কেননা সম্প্রতি পরীক্ষামূলকভাবে নমনীয় বৈদ্যুতিক সেন্সরযুক্ত স্মার্ট ট্যাটু দিয়ে হৃদযন্ত্র ও মস্তিষ্কের কার্যকলাপ দেখভাল করছে। ঘুমের সমস্যা এবং পেশীর ওপরও নজর রাখছে এই ট্যাটু।
স্মার্ট ডায়াপার: শিশুদের দেখভাল করতে জিপিএস নেটওয়ার্ক সমৃদ্ধ স্মার্ট ডায়াপার রয়েছে বাজারে। শিশু প্রাকৃতিক কর্ম সম্পাদন করা মাত্রই এটি মা বা অভিভাবকের ফোনে বার্তাটি পৌঁছে দেয় এক্সট্রাভা’র মতো ডায়াপার। এতে করে শিশু সর্দি, কাশি, জ্বর থেকে কিছুটা হলেও নিরাপদে থাকতে পারে।
লেজার জুতা: পার্কিনসনের রোগের জন্য লেজার জুতা তৈরি করেছে লন্ডনভিত্তিক লাইস প্যাপ উদ্যোক্তা। জুতাটি একটি লেজার বিম প্রজেক্ট দিয়ে কাজ করে। লেজার মস্তিষ্ককে পরবর্তীতে কী করতে হবে তা সনাক্তে সাহায্য করে।