বাড়ি নির্মাণ প্রকল্পের কাজ এখনো শুরু হয়নি

চারমাস ধরে বাড়িছাড়া লংগদুর অগ্নিদুর্গতরা

ইয়াছিন রানা সোহেল, রাঙামাটি

23

রাঙামাটির লংগদুর অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তরা গত চার মাস ধরে বাড়িঘর ছাড়া। এখনো অনিশ্চতায় দিন কাটছে তাদের। সরকার বাড়ি বানিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রæতি দিলেও বাস্তবে তার কোন প্রতিফলন না ঘটায় ক্ষতিগ্রস্তরা ক্ষোভ নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। ইতোমধ্যে তিনটিলা, মানিকজোড় ছড়া এবং পশ্চিম বাইট্টাপাড়ায় গ্রামের কিছু পরিবার নিজ উদ্যোগে টং ঘর বানিয়ে থাকছেন।
এই বিষয়ে রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান বলেন, আর্থিক বিষয়টির ¯^চ্ছতা রাখতে কিছুটা দেরি হচ্ছে। কাজের ¯^চ্ছতা ও গুণগত মানের কথা মাথায় রেখে আমরা কাজ করছি।
অন্যদিকে কিছু ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার উপজেলা সদরের দুটি বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়ে থাকলেও জেএসসি ও জেডিসির পরীক্ষার জন্য অনেককে বিদ্যালয় ছাড়তেও হয়েছে। যারা নিরূপায় হয়ে আছেন তারা আবার গৃহবন্দি। পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে এলাকা ছাড়তে হয়, আবার পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত রুমে যাওয়া যায় না।
লংগদু বালিকা বিদ্যালয়ের অর্ধ নির্মিত ছাত্রী হোস্টেলে অনেকের মত আশ্রয় নেয়া তিনটিলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা সুচিত্রা চাকমা বলেন, ‘বাড়ি ঘর হারিয়ে এমনিতে আমরা নিঃ¯^, তার ওপর এখন আবার গৃহবন্দি। হাতে কোন টাকায় নাই, যা দিয়ে ঘরবাড়ি বানিয়ে থাকবো। আবার অন্য কোথায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকবো, তাও সার্মথ্য নেই। কোথাও কোন ভাড়া বাসা পাওয়াও যাচ্ছে না। বাধ্য হয়ে আছি। সরকার বাড়ি বানিয়ে দিবে শুনেছি। কিন্তু সেটা কখন?
লংগদু উপজেলা জনসংহতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক মনি শংকর চাকমা বলেন, ‘শীতকাল চলে আসলো। এখনো ক্ষতিগ্রস্তরা গৃহহারা। কখন সরকার ঘর করে দিবে জানি না। এই মানুষগুলো অনিশ্চতার মধ্যে বসবাস করছে। কি হচ্ছে না হচ্ছে কিছুই এখনো জানি না। গত রোববার উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমাকে ফোন দিয়ে বুধবার দেখা করতে বলেছেন। দেখি কি বলে’।
লংগদু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাদ্দেক মেহেদি ইমাম বলেন, ‘১৭৬টি বাড়ি কয়টি প্যাকেজে টেন্ডার আহŸান করা হবে, সেই বিষয়টি নিয়ে আশ্রায়ণ প্রকল্পের সচিবের সাথে কথা হয়েছে এবং ৪টি প্যাকেজ টেন্ডার করার অনুমোদনের জন্য বৃহস্পতিবার আশ্রায়ণ-২ প্রকল্পে পাঠানো হবে। উপজেলা এলজিইডি অফিসার হঠাৎ বদলি হওয়ার কারণে কাজটি থমকে যায় পরে এক ভারপ্রাপ্ত অফিসারকে দিয়ে কাজ করতে হচ্ছে। আশা করছি প্যাকেজের অনুমোদন পেলেই পরের সপ্তাহে টেন্ডার আহŸান করা যাবে।
প্রসঙ্গত, গত ১ জুন লংগদু উপজেলার সদর ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক নুরুল ইসলাম নয়নের লাশ দীঘিনালার চারমাইল এলাকায় পাওয়া যায়।
২ জুন সকালে একটি প্রতিবাদ মিছিল থেকে স্থানীয় পাহাড়িদের দোকান, বসত ঘরসহ চারটি গ্রামের দু’শতাধিক বাড়িঘরে আগুন দেওয়া হয়।