চমেক’র গাইনির লেবার রুমে দুই ভুয়া ডাক্তার

103

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডের ‘লেবার রুম’ থেকে আটক করা হয়েছে দুই ভুয়া ডাক্তারকে। পুলিশের ধারণা, তারা ডাক্তার সেজে নবজাতক চুরি করার মতলবে ছিল।

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার বাংলানিউজকে জানান, ডাক্তারদের ইউনিফর্ম পরে মিরসরাইয়ের নিজামপুর কলেজ এলাকার মো. জাফরের ছেলে মো. রাজ (১৯) এবং বরিশালের বাকেরগঞ্জের শাহরিয়ার মাহমুদের স্ত্রী ফারজানা আকতার মনি (২৬) ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের সংবেদনশীল এলাকা হিসেবে চিহ্নিত লেবার রুমে ঢুকে পড়েন। তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় ওয়ার্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীরা চ্যালেঞ্জ করেন। পরে তাদের আটক করে চমেক পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে আসা হয়।

এএসআই আলাউদ্দিন জানান, ফারজানা আকতার নিজেকে গাইনি বিশেষজ্ঞ পরিচয় দেন। প্রকৃতপক্ষে তারা দুজনই ভুয়া ডাক্তার। তাদের পাঁচলাইশ থানায় পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

চমেক হাসপাতালের পরিচালক বি. জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, বিকেলে ভিজিটিং আওয়ারে রোগীর স্বজনদের প্রবেশে শিথিলতা থাকার সুযোগ কাজে লাগিয়ে দুইজন ভুয়া ডাক্তার লেবার রুমে ঢুকে পড়েছিলেন। তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। আগামীতে এ ধরনের ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে লক্ষ্যে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছি।

চমেক সূত্রে জানা গেছে, ১৩১৩ শয্যার এ সরকারি হাসপাতালে পরিচালকের অধীনে ২৭০ জন, চমেক’র অধীনে ২৪৭ জন, ৩০০ অনারারি মেডিকেল অফিসার, পোস্ট গ্রাজুয়েশন কোর্সের অধীন ২০০ এবং আড়াই শতাধিক ইন্টার্নি চিকিৎসক রয়েছেন।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম